১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

নগরনামা প্রদর্শনী

-

ঢাকায় শুরু হয়েছে বসবাসের ভবিষ্যৎ নিয়ে বিশেষ প্রদর্শনী ‘নগরনামা’। গত ২ নভেম্বর থেকে বেঙ্গল শিল্পালয়ের কামরুল হাসান প্রদর্শনশালায় শুরু হয়েছে এই প্রদর্শনী। বেঙ্গল ইনস্টিটিউট দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল ও শহর নিয়ে গবেষণা করেছে এবং গবেষণালব্ধ, সুচিন্তিত বসবাসের প্রস্তাবনা ও উদাহরণ তৈরি করেছে। বিগত বছরগুলোতে বিভাগীয় শহরসহ বেশ কয়েকটি ছোট শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানের পরিকল্পনা ও নকশা তৈরি করা হয়েছে। তা ছাড়া দেশ ও বিদেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের পরিচালনায় উচ্চমানের শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়েছে। এই ইনস্টিটিউটের উল্লেখযোগ্য কাজ নিয়েই হচ্ছে এই আয়োজন। সাধারণ দর্শকদের জন্য রোববার ছাড়া প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে এই প্রদর্শনী। আয়োজকরা জানিয়েছেন, আমাদের আগামীর চ্যালেঞ্জগুলো হবে পরিবেশ নিয়ে। শহর-নগরের বিস্তার তার মধ্যে অন্যতম। আগামীর নগর-চরিত্র কেমন হবে? গ্রামগুলো পরিবর্তিত হয়ে কী রকম রূপ নেবে? গ্রাম ও নগরের মিলনে কী অন্য রকম জনপদ তৈরি হবে?
নদী-নালা, খাল-বিল, জলাভূমি, ধানি জমিÑ এসব নিয়েই হবে নতুন জনপদ, নতুন নগরবিন্যাস। বাংলাদেশের অবারিত উর্বর জমি ও অন্যান্য জল-ভৌগোলিক উপাদানগুলো চিন্তা করলে এটা অবশ্যম্ভাবী। বাংলাদেশই পৃথিবীকে দেখাতে পারে, এ বৈশিষ্ট্যগুলো মেনে, জল-আবহাওয়ার পরিবর্তনের সাথে খাপ খাইয়ে কী রকম অভিনব এবং মানবিক জনপদ নির্মাণ করা যায়। নদী-নালা, খাল-বিল শুধু নৈসর্গিক শোভা নয়, এগুলো ইকোলজিক্যাল সম্পদ; খাদ্য, পানি ও জীবনের সম্ভার। শহর ও জনপদ তো গড়বই; কিন্তু আমরা কি কৃষি ও জলাভূমি বিনষ্ট করে নাগরিক হব? নতুন নগর রচিত হবে নতুন জনপদ ইকোলজিক্যাল ও মানবিক ধারায়।


আরো সংবাদ