২১ মার্চ ২০১৯

মিয়ানমারকে আরাকান আর্মি-প্রধানের হুঁশিয়ারি

আরাকান আর্মি-প্রধানের হুঁশিয়ারি - ছবি : সংগৃহীত

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে উত্তেজনার অবসানে কনফেডারেশনই একমাত্র বিকল্প বলে জানিয়েছেন সেখানকার আরাকানি গোষ্ঠীগত সশস্ত্র গ্রæপ আরাকান আর্মি (এএ) প্রধান মেজর জেনারেল তুন মিয়াত নাইং। মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম দি ইরাবতির সাথে এক সাক্ষাৎকারে তিনি কনফেডারেশনকে রাখাইন রাজ্যের ইতিহাসে এর বাসিন্দা আরাকানিদের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত পন্থা বলে উল্লেখ করেন। এ প্রসঙ্গে তিনি ওয়া রাজ্যের উদাহরণ টানেন। সেখানে এএ’র সহযোগী গ্রæপ ইউনাইটেড ওয়া স্টেট আর্মি (ইউডবিøউএসএ) দেশের সংবিধানের আলোকে সেই রাজ্যে কনফেডারেশনের সমান সুবিধা পেয়ে আসছে। 

আরাকান আর্মি নিজেদের মর্যাদা প্রতিষ্ঠার দাবিতে দেশটির সেনাবাহিনীর সাথে সশস্ত্র লড়াইয়ে লিপ্ত। সপ্তাহখানেক আগে তারা রাজ্যটিতে বেশকিছু পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালিয়ে ১৩ পুলিশ সদস্যকে হত্যা করে। এরপর সেখানে সেনাবাহিনী নিরাপত্তা ক্যাম্প ও বাংকার স্থাপন করে পাহারা জোরদার করে। রাখাইন রাজ্যে মুসলিম রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী দেশটির রাষ্ট্রীয় বৈষম্য, নির্যাতন ও সংখ্যাগুরু বৌদ্ধদের জাতিগত বিদ্বেষের পাশাপাশি প্রায়ই আরাকান আর্মির নিষ্ঠুরতার শিকার হয়ে আসছে।

গত মাসে দেশটির সেনাবাহিনী উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে জাতিগত স্বায়ত্তশাসনের লড়াইয়ে লিপ্ত একাধিক সশস্ত্রগোষ্ঠীর সাথে চার মাসের অস্ত্রবিরতি ঘোষণা করে। শান্তি আলোচনা শুরু করাই ছিল এ ঘোষণার লক্ষ্য। কিন্তু রাখাইনের সশস্ত্রগোষ্ঠীগুলোকে এর আওতায় আনা হয়নি।


আরো সংবাদ