১৯ অক্টোবর ২০১৯

নিজেকে নির্দোষ দাবি ক্রাইস্টচার্চ ঘাতকের

-

আদালতের শুনানিতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন নিউজিল্যান্ডের দুই মসজিদে গুলি চালিয়ে ৫১ মুসল্লিকে হত্যাকারী ট্যারান্ট। শুক্রবার কারাগার থেকে ভিডিও কফারেন্সের মাধ্যমে আদালতের শুনানিতে অংশ নেন ট্যারান্ট। যদিও তিনি নিজে কোন কথা বলেননি। তার হয়ে কথা বলেছেন আইনজীবী।

গত ১৫ মার্চ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে জুমার নামাজের সময় দুটি মসজিদে হত্যাকাণ্ড চালানোর ঘটনায় তার বিরুদ্ধে ৫১ ব্যক্তিকে হত্যা, ৪০ জনকে হত্যাচেষ্টা ও সন্ত্রাসবাদের একটি অভিযোগ আনা হয়েছে। নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে দায়ের করা প্রথম সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ এটি।

সেমি-অটোমেটিক রাইফেল দিয়ে নামাজরত মুসল্লিদের ওপর হামলা চালান ট্যারান্ট। আবার হামলার ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরাসরি প্রচারও (লাইভ) করেন তিনি। তার চালানো ওই হামলাকে নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্দুক হামলা হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। হামলার পরপরই তাকে গ্রেপ্তার করে নিউজিল্যান্ড পুলিশ।

শুক্রবার মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হয় ক্রাইস্টচার্চের হাইকোর্টে। অকল্যান্ডের কারাগার থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ওই শুনানিতে যোগ দেন তিনি। বড় পর্দায় তাকে দেখতে পান আদালতে উপস্থিত ব্যক্তিরা। তার পরনে ছিল কয়েদির পোশাক।
আল জাজিরা জানিয়েছে, ট্যারান্ট শুনানির পুরোটা সময় চুপ ছিলেন। আদালতের কার্যক্রম দেখা যাচ্ছে কিনা বিচারকের এমন প্রশ্নে মাথা নেড়ে সায় দেন।

শুনানিতে ট্যারান্টের আইনজীবী শন টেইট জানান, ট্যারান্ট নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন। এরপর আদালতের বিচারক ক্যামেরন ম্যান্ডার জানান, এ মামলার পরবর্তী কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে আগামী বছরের ৪ মে। এর মধ্যে ১৬ আগস্ট মামলার একটি পর্যালোচনামূলক শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। ততদিন পর্যন্ত ট্যারান্ট রিমান্ডে থাকবেন।

বিচারক ট্যারান্টকে মানসিকভাবে সুস্থ ঘোষণা করে বলেন, আসামীর আবেদন করা নিয়ে, কাউন্সেলকে নির্দেশনা দেয়া নিয়ে ও নিজের বিচারকার্যে অংশগ্রহণ নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। এ বিষয়ে তার উপযুক্ততা প্রমাণ করতে কোনো আলাদা শুনানির প্রয়োজন নেই।


আরো সংবাদ