২৩ অক্টোবর ২০১৯

তীব্র স্রোত ও নাব্যতা সঙ্কট কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ, দীর্ঘ যানজট

কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌপথে তীব্র স্রোত চলতে না পারায় পল্টুনে ফেরি বাঁধ রয়েছে : নয়া দিগন্ত -

প্রবল স্রোতের কারণে দক্ষিণাঞ্চলের প্রবেশ দ্বার মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঘাটে দীর্ঘ যানজটের কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা।
গত সোমবার রাত ৯টা থেকে ওই রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখে কর্তৃপক্ষ। গতকাল বুধবার এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত ওই রুটে ফেরি চলাচল শুরু হয়নি। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন পরিবহন চালক, শ্রমিকেরা ও সাধারণ যাত্রীরা।
কাঁঠালবাড়ী ঘাট সূত্র জানিয়েছে, আগস্ট মাস থেকেই তীব্র স্রোত ও নাব্যতা সঙ্কটে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। গত সোমবার রাত ৯টা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় ঘাট এলাকায় পণ্যবাহী পরিবহন আটকে আছে। পদ্মা নদীতে নাব্যতা সঙ্কট ও তীব্র স্রোত অব্যাহত থাকায় চলতে পারছে না ফেরিগুলো।
কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া রুটে চারটি রো রোসহ ১৮টি ফেরি থাকলেও উদ্ভূত সঙ্কটের কারণে মাঝে মধ্যে চলাচল ব্যাহত হওয়ার পাশাপাশি দীর্ঘ সময় বন্ধও থাকছে ফেরি চলাচল। ফলে দুর্ভোগ পিছু ছাড়ছে না ওই নৌরুট ব্যবহারকারীদের।
বরিশাল থেকে আসা ট্রাকচালক রফিক মিয়া জানান, গত সোমবার রাত থেকে ফেরি বন্ধ। আটকে আছি ঘাটে। নির্ধারিত সময় ঢাকা যেতে পারছি না। এ দিকে ঘাটে খাদ্যদ্রব্যের দামও বেশি। সব মিলিয়ে বেশ কষ্টকর হয়ে উঠছে এ রুটের চলাচল।
অন্য এক ট্রাকচালক মোহাম্মদ আলী খান বলেন, ‘সোমবার বিকেলে এসেও পার হতে পারিনি। আর এখন ফেরি বন্ধ। কখন চালু হবে তাও জানে না কেউ।’
পচনশীল পণ্যবাহী এক ট্রাকের শ্রমিক জানান, ঘাটে আটকে থেকে ট্রাকে থাকা সবজি নষ্ট হওয়ার পথে। আর ঘাটে বসে থেকে আমাদের খরচও বেড়ে যাচ্ছে।
বিআইডব্লিউটিসির কঁাঁঠালবাড়ী ঘাটের ব্যবস্থাপক আবদুস সালাম মিয়া বলেন, নাব্যতা সঙ্কট ও তীব্র স্রোতের কারণে ফেরি চলাচল বন্ধ গত সোমবার রাত থেকে। কখন থেকে চলবে তার নির্দেশনা এখনো আসেনি।


আরো সংবাদ