১৭ নভেম্বর ২০১৯

রানীনগরের আকনা-বড়গাছা সড়ক বেহাল : ১০ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

রানীনগরের আকনা-বড়গাছা সড়কে কার্পেটিং ওঠে গিয়ে এমন দশা হয়েছে : নয়া দিগন্ত -

নওগাঁর রানীনগরে আকনা-বড়গাছা পাকা সড়কের মাঝে মাঝে কার্পেটিং উঠে গিয়ে ছোট-বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে সড়কটি বেহাল হয়ে পড়েছে। দীর্ঘ দিন ধরে সড়কটি সংস্কার না করায় স্কুলের শিক্ষার্থী, যানবাহন চালকসহ ১০ গ্রামের মানুষ দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।
জানা গেছে, রানীনগর উপজেলার বড়গাছা ইউনিয়নের আকনা-বড়গাছা তিন কিলোমিটার সড়ক পাকাকরণ করা হয় দীর্ঘ দিন আগে। পাকাকরণ করলেও সংস্কার না করায় মাঝে মাঝে কার্পেটিং উঠে ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে কৃষিপ্রধান এলাকার লোকজন ধান, চাল, সবজিসহ বিভিন্ন মালামাল পরিবহনে চরম দুর্ভোগে পড়েছে। এ ছাড়া এই সড়ক দিয়ে বড়গাছা, খাসগড়, আকনা, বাঁশবাড়িয়াসহ এলাকার প্রায় ১০ গ্রামের মানুষ চলাচল করে। সড়কটির বেহাল দশার কারণে দিন দিন বাড়ছে দুর্ভোগ। শুকনো মৌসুমে চলাচল করা গেলেও চরম দুর্ভোগে পড়তে হয় বর্ষা মৌসুমে। দিনে কিংবা রাতে চলাচলের সময় সড়কে ছোট-বড় গর্তে উল্টে পড়ে ভ্যানগাড়ি, সাইকেলসহ ছোটখাটো যানবাহন। তবু এই সড়কেটি সংস্কার করার কোনো উদ্যোগ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এমনই অভিযোগ গ্রামবাসীর।
এলাকার ইমরান হোসেন, অসিম কুমার, আকবর আলীসহ অনেকে জানান, সড়কটি পাকাকরণ করলেও দীর্ঘ দিন সংস্কার না করায় বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। সড়কে মাঝে মাঝে কার্পেটিং উঠে গিয়ে ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কটি সংস্কার না করায় দিন দিন দুর্ভোগ বেড়েই চলেছে। দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পেতে দ্রুত সড়কটি সংস্কারের দাবি জানান তারা।
রানীনগর উপজেলার বড়গাছা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শফিউল ইসলাম শফু বলেন, এই সড়কটি সংস্কারের জন্য বিভিন্ন দফতরে আমি জানিয়েছি। বরাদ্দ পেলেই হয়তো কাজ শুরু হবে। এ ব্যাপারে রানীনগর উপজেলা প্রকৌশলী সাইদুর রহমান মিঞা বলেন, সড়কটি সংস্কারের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবর প্রস্তাবনা পাঠনো হয়েছে। বরাদ্দ পেলেই সংস্কারের কাজ শুরু করা হবে।


আরো সংবাদ