২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকি ছাত্রলীগ নেতার

ছাত্রলীগের সহসভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন তকদির
ছাত্রলীগের সহসভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন তকদির - ছবি : সংগৃহীত

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার পাথরঘাটা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জাফর ইকবালকে খবর প্রকাশ না করার জন্য পাথরঘাটা উপজেলার কাকচিড়া সাংগঠনিক থানা ছাত্রলীগের সহসভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন তকদির নামে এক ব্যক্তি প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে। এঘটনায় জাফর ইকবাল নিরাপত্তা চেয়ে পাথরঘাটা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন। যার নম্বর পাথরঘাটা থানা- ৪৮০, ১০ ফেব্রুয়ারি।

আব্দুল্লাহ আল মামুন তকদির পাথরঘাটা উপজেলার রায়হানপুর ইউনিয়নের গোলবুনিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল কুদ্দুস এর ছেলে ও পাথরঘাটা উপজেলার কাকচিড়া সাংগঠনিক থানা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি।

সাধারণ ডায়েরী থেকে জানা গেছে, সম্প্রতি উপজেলার রায়হানপুর ইউনিয়নের ৪ নম্বর লেমুয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুইটি পরিত্যাক্ত ভবনের দরজা, জানালা ও গ্রীল রাতের আঁধারে ভবন থেকে খুলে উল্লেখিত তকদিরসহ একাধিক মাদক চক্র ওই বিদ্যালয়ের দপ্তরী-কাম নৈশ প্রহরী রতন শীলের সহযোগিতায় মাদকের টাকা সংগ্রহ করার জন্য বিক্রি করে। এছাড়াও প্রায় দিনই রাতের আঁধারে উল্লেখিত বিদ্যালয়ের মধ্যে মাদকের আড্ডা বসে মর্মে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সূত্রে সংবাদ পেয়ে ৭ ফেব্রুয়ারি সরেজমিনে তথ্য সংগ্রহের জন্য গেলে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষসহ বিভিন্ন সূত্রে ঘটনার সত্যতা পান।

পরে মোবাইলে ফোন দিয়ে খবর প্রকাশ না-করার জন্য তাকে অনুরোধ করে তকদির। তারই ধারাবাহিকতায় গত ৯ ফেব্রুয়ারি শনিবার রাত ৮টার দিকে ০১৬১৮৪৫৬৬৬৫ নম্বর থেকে জাফর ইকবাল এর ব্যবহৃত ০১৭২৪৩২২৯৬৫ নম্বরে কল করে আব্দুল্লাহ আল মামুন তকদিরসহ অজ্ঞাত আরো ২ থেকে ৩ জন লোক খবর প্রকাশ না-করার জন্য প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। এসময় তারা বলেন, ‘তুই আমার বিরুদ্ধে খবর প্রকাশ করলে তোকে খুন করব’।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আব্দুল্লাহ আল মামুন তকদির ছাত্রলীগের নাম ব্যবহার করে দীর্ঘদিন যাবৎ ইয়াবাসহ মাদকের ব্যবসা করে আসলেও তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থনীয়রা জানায়, আব্দুল্লাহ আল মামুন তকদির এর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা এবং একাধিক সাধারণ ডায়েরী থাকলেও অজ্ঞাত কারণে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছেন না প্রশাসান।

এব্যাপারে ওই বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, বিষয়টির ব্যাপারে নৈশ প্রহরী রতন শীলকে কারণদর্শানো নোটিশ দেওয়ার পরে সে লিখিতভাবে জানিয়েছেন যে, বিদ্যালয়ের উল্লেখিত মালামাল যারা বিক্রি করেছে তাদেরকে চিনতে পারলেও প্রাণের ভয়ে সে মুখ খুলতে পারছেন না।

জাফর ইকবাল জানান, গত শনিবার ৯ ফেব্রুয়ারি রাতে আমাকে আমার মোবাইল আব্দুল্লাহ আল মামুন তকদিরসহ অজ্ঞাত আরো ২ থেকে ৩ জন লোক আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে। পরে ফোনে ১০ ফেব্রুয়ারি আমি বিষয়টি প্রেসক্লাবের সকলকে অবহিত করে প্রেসক্লাবের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উল্লেখিত আব্দুল্লাহ আল মামুন তকদিরসহ অজ্ঞাত আরো ২ থেকে ৩জন এর কথা উল্লেখ করে নিরাপত্তা চেয়ে পাথরঘাটা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছি। তিনি জানান, বর্তমানে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন, এব্যাপারে তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

আব্দুল্লাহ আল মামুন তকদিরের বিরুদ্ধে অনেক মামলা ও সাধারণ ডায়েরী আছে এ কথা স্বীকার করে পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হানিফ সিকদার বলেন, বিষয়টির ব্যাপারে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।


আরো সংবাদ