২২ আগস্ট ২০১৯

একটি শালিক পাখির জন্য খুন হলো মাদ্রাসা ছাত্র হাবিবুল্লাহ

শালিক পাখির বাসা থেকে একটি বাচ্চাকে আগে নামিয়ে নেয়ার জেরে হত্যা করা হয়েছে মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র মো. হাবিবুল্লাহ বাবুকে (১৪)।

গত ২ মে পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার দারুলহুদা গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। নিহত হাবিবুল্লাহ ওই গ্রামের আব্দুল খালেক হাওলাদারের পুত্র।

হত্যাকান্ডের পর ৪ মে হাবিবুল্লার বড় ভাই মো. মিজানুর রহমান ভান্ডারিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। থানা পুলিশ আসামিদের গ্রেফতারে গড়িমসি করার কারণে পুলিশ সুপার মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) দায়িত্ব দেয়া হয়।

পিবিআই’র উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহমুদুর রহমানকে মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব দেয়ার পর তিনি গত ১ আগস্ট চট্টগ্রাম থেকে মামলার ৩ নম্বর আসামি সোহেল হওলাদারকে (৪০) প্রথমে গ্রেফতার করে। তার স্বীকারোক্তিতে এক নম্বর আসামি সোহেলের পুত্র হ্রদয়কে খুলনার পুর্ব রূপসার খালা বাড়ি থেকে ২ আগস্ট গ্রেফতার করে। পরে এ হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে শুক্রবার রাতে সাব্বির হোসেন নামক এক কিশোরকে গ্রেফতার করে। বিষয়টি নিশ্চিত করে মামলার তদন্তকারি অফিসার মাহমুদুর রহমান জানান মামলার এক নম্বর আসামি হ্রদয় হোসেন স্বীকার করেছে একটি শালিক পাখিকে কেন্দ্র করে পরিকল্পিত ভাবে হাবিবুল্লাহকে শ্বাসরোধ করে হত্যা পর জঙ্গলের মধ্যে লাশ লুকিয়ে রাখা হয়।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিকেল সাড়ে চারটায় আসামিদের পিরোজপুর আদালতে হাজির করা হয়েছে। উল্লেখ্য নিহত হাবিবুল্লাহ দারুলহুদা আল-গায্যালি কামিল মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেনিতে পড়তো।


আরো সংবাদ