২১ নভেম্বর ২০১৯

৩ দিনেও খোঁজ মেলেনি বঙ্গোপসাগরে ডুবে যাওয়া ট্রলার ও জেলের

ঝড়ের কবলে পড়ে ডুবে যাওয়া মাছ ধরা ট্রলারসহ মো. সুমন (৩৫) নামের এক জেলের সন্ধান তিন দিনেও পাওয়া যায়নি। তিন দিনেও জেলের সন্ধান না পাওয়ায় পরিবার ও সঙ্গীয় জেলেদের মাঝে চলছে শোকে মাতম আর আহাজারি।

এর আগে গত শুক্রবার ভোররাত ৩টার দিকে সুন্দরবন সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে পাথরঘাটা উপজেলার দক্ষিণ চরদুয়ানী গ্রামের মো. মোস্তফা মিয়ার মালিকানা একটি মাছ ধরা ট্রলার ডুবে যায়। এতে ট্রলার মালিক মোস্তফাসহ ১০ জেলে ছিল। নিখোজ সমুন পাথরঘাটা উপজেলার চরদুয়ানী ইউনিয়নের দক্ষিণ চরদুয়ানী গ্রামের মো. আবু হানিফের ছেলে।

ট্রলার মালিক ও মাঝি মো. মোস্তফা রোববার দুপুরে জানান, নিষেধাজ্ঞা শেষে নতুন তৈরী ট্রলারটি নিয়ে মাছ শিকারে যান সুমনসহ ১০ জন জেলে। সুন্দরবন সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে শুক্রবার রাত ৩টার দিকে হঠাৎ বাতাসে ট্রলারটি ডুবে যায়। তড়িঘড়ি করে তিনিসহ ৯ জেলে সাঁতরিয়ে অন্য ট্রলারে উঠতে পারলেও মো. সুমন নামের এক জেলে উদ্ধার হয়নি। ট্রলারসহ ওই জেলে ডুবে যায়। এ বিষয় শনিবার পটুয়াখালীর মহিপুর থানায় একটি জিডি করেন। যার নং-৭২।

এদিকে বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বলেন, মালিক সমিতি, শ্রমিক ইউনিয়ন ও কোস্টগার্ডের সমন্বয়ে ডুবে যাওয়া ট্রলার ও নিখোঁজ জেলেকে সন্ধানের জন্য কাজ চলছে।

কোস্টগার্ডের পাথরঘাটা স্টেশন কমান্ডার লে. বিশ্বজিৎ বড়ুয়া বলেন, কুয়াকাটা থেকে ১০ কিলোমিটার দক্ষিণে তাদের একটি টহল বোট নিখোঁজ ট্রলারসহ জেলেকে উদ্ধারে কাজ করছে।


আরো সংবাদ