১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন তোফায়েল আহমেদ

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন তোফায়েল আহমেদ - নয়া দিগন্ত

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি, সাবেক মন্ত্রী ও ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, আমরা আশা করি খুব শিগগিরই পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক হয়ে যাবে। দেশে আরো ৫০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ আসছে। সেটা এলেই পেঁয়াজের চাহিদা পুরণ হয়ে যাবে। আমরা বার্ষিক চাহিদা, উৎপাদন ও ঘাটতি কত তা নিরুপন করি। এরপর আমদানি করি। কিন্তু এ বছর সেটি ঠিকভাবে নিরুপন করতে পারি নাই। এছাড়াও ঘূর্ণিঝড় বুলবুলেও একটা প্রভাব পড়েছে।

অপরদিকে ভারত থেকে আমরা সবচেয়ে বেশী পেয়াজ আমদানি করি। কিন্তু ভারত এবছর সেটি বন্ধ করে দিয়েছে। পৃথিবীর অনেক দেশে এ বছর পেঁয়াজ উৎপাদন কম হয়েছে। এসবগুলো মিলেই পেঁয়াজের বাজারে একটা প্রভাব পড়েছে। শুক্রবার দুপুরে ভোলা সদরের ইলিশা ইউনিয়নে ঘুর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমি যখন বাণিজ্যমন্ত্রী ছিলাম তখন বাৎসরিক চাহিদা, উৎপাদন ও ঘাটতি নিরুপন করেই ৪-৫ মাস পূর্বে পদক্ষেপ নেয়া হতো কিন্তু এ বছর হয়ত সেটি আমরা ঠিকভাবে অনুমান করতে পারিনি। এ থেকে আমাদের শিক্ষা নিয়ে ভবিষ্যতে এগিয়ে যেতে হবে। কারণ আমাদের প্রতিটি পণ্য যেমন ভোজ্যতেল ও চিনি আমদানি করতে হয়।

আওয়ামী লীগের এ জৈষ্ঠ নেতা বলেন, বিএনপি সম্পর্কে তাদের দলীয় নেতাকর্মীদেরও ধারণা খুব খারাপ। কারণ বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতি মামলায় কারাগারে। তার ছেলে দলের ভারপ্রাপ্ত নেতা সেও সাজাপ্রাপ্ত। একটা দল যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত নেতার নেতৃত্বে চলতে পারে না। এবং দলের নির্দেশ আসে লন্ডন থেকে। এটি নিয়ে সিনিয়র অনেক নেতাও খুব বিব্রত। কারণ সে ছেলের বয়সও অনেক কম। এ নিয়ে রাগে ক্ষোভে প্রবীণ অনেক নেতা পদত্যাগ করতে পারেন। সেটা তাদের অভ্যান্তরীণ ব্যাপার।

তিনি আরো বলেন, যারা সৎ, নিষ্টাবান ও আদর্শবান তাদের নিয়ে আওয়ামী লীগ সংগঠিত হবে। বিভিন্ন দল থেকে এসে হঠাৎ নেতা হয়ে যাবে সেটি ভবিষ্যতে হবে বলে আমি মনে করি না। সুতরাং আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত হয়ে আজ পৃথীবির মধ্যে শ্রেষ্ঠ সংগঠন। এবং তৃণমূল পর্যন্ত আজ সংগঠিত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ ৩৮ বছর অত্যান্ত সততা, নিষ্ঠা ও দক্ষতার সাথে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

পরে তোফায়েল আহমেদ বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত প্রত্যেক পরিবারকে নগদ ৬ হাজার টাকা, ২ বান্ডিল করে ঢেউটিন ও ৩০ কেজি করে চাল বিতরণ করেন।

এ সময় ভোলার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক, পুলিশ সুপার সরকার মো. কায়ছার, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জহুরুল ইসলাম নকিব, সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লবসহ দলীয় অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 


আরো সংবাদ