১১ ডিসেম্বর ২০১৯

বাসর রাতে স্বামী জানতে পারেন তার নববধূ অন্তঃস্বত্ত্বা

বাসর রাতে স্বামী জানতে পারেন তার নববধূ অন্তঃস্বত্ত্বা - ফাইল ছবি

বাসর রাতে স্বামী জানতে পারেন তার নববধূ সাত মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা। এ নিয়ে বর ও কনের পরিবারের মধ্যে চরম বিরোধ দেখা দেয়। ঘটনার পাঁচদিন পর বিষয়টি থানা পুলিশ জানতে পেরে ধর্ষক গ্রাম্য ভণ্ড ফকিরকে গ্রেফতার করেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে গ্রেফতারকৃতকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার চাঁদপাশা ইউনিয়নের বকশিরচর গ্রামে।

পুলিশ জানায়, ওই গ্রামের বাসিন্দা মৃত. রেজাউদ্দিন হাওলাদারের পুত্র কাঞ্চন আলী হাওলাদার নিজ এলাকায় ঝাড়-ফুঁকের কাজ করেন। অন্তঃস্বত্ত্বা কিশোরীর দিনমজুর বাবা জানান, গত কয়েক মাস আগে তার মেয়ের আচরণের পরিবর্তন দেখে গ্রাম্য ফকির কাঞ্চন হাওলাদারের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। পরবর্তীতে গোপন সমস্যার চিকিৎসা করানোর নামে তার মেয়েকে কাঞ্চন আলী কৌশলে ধর্ষণ করে। এতেই তার মেয়ে অন্তঃস্বত্ত্বা হয়ে পরে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে ভণ্ড ফকির কাঞ্চন নিজেই ঘটক হয়ে গত ১৫ নভেম্বর একই ইউনিয়নের বেপারী বাড়ির এক ছেলের সাথে ওই কিশোরীকে বিয়ে দেন। কিন্তু বাসর রাতেই কিশোরী অন্তঃস্বত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি জানতে পারেন তার স্বামী। এ নিয়ে মেয়ে এবং ছেলের পরিবারের মধ্যে চরম বিরোধের সৃষ্টি হয়। এ পরিস্থিতিতে বুধবার সকালে অন্তঃস্বত্ত্বা কিশোরীর বাবা বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করেন।

এয়ারপোর্ট থানার ওসি এসএম জাহিদ বিন আলম বলেন, এ ঘটনায় ওই কিশোরী বাদী হয়ে মামলা দায়েরের পর তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে কাঞ্চন হাওলাদারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 


আরো সংবাদ