১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পাওনা টাকার দাবিতে টেক্সটাইল মিলের সাবেক কর্মচারীদের সংবাদ সম্মেলন

-

দীর্ঘ ৪০ বছরের কর্মজীবন থেকে অবসর গ্রহণ করার পাঁচ বছরেও ন্যায্য পাওনা থেকে বঞ্চিত কুমিল্লার চান্দিনা ও দেবিদ্বার উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় অবস্থিত হাবিবুর রহমান টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের শ্রমিক-কর্মচারী ও কর্মকর্তারা।

সারাজীবনের সঞ্চিত টাকা ও ন্যায্য বেতন-ভাতা না পেয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন ওই মিলের প্রায় দুইশ শ্রমিক-কর্মচারী ও কর্মকর্তা। দীর্ঘ পাঁচ বছর যাবৎ মালিকপক্ষের কাছে ধরণা দিয়েও পাচ্ছেন না তাদের ন্যায্য পাওনা।

তাদের ন্যায্য পাওনা আদায়ের দাবিতে আজ শনিবার কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন তারা।

এসময় তারা লিখিত বক্তব্যে বলেন, চাকরির শুরু থেকে মালিকপক্ষ আমাদের যে শর্তে নিয়োগ দিয়েছিলেন ২০১৪ সালের পূর্বে সেই মোতাবেক সকল শ্রমিক ও কর্মচারীদের তাদের ন্যায্য পাওয়া পরিশোধও করেন। কিন্তু ২০১৪ সালের পর থেকে যেসব শ্রমিক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা অবসর গেছেন তাদের বকেয়া বেতন ও অবসর ভাতা পরিশোধ করেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এদের মধ্যে ১২৫ জন শ্রমিক, ৩৩ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছেন। আমাদের পাওনা পরিশোধ না করে জোরপূর্বক মিলের কোয়ার্টার থেকে আমাদের বের করে দেয়া হয়। বর্তমানে মিল মালিকপক্ষ আমাদের ফোন রিসিভ করেন না। সাক্ষাতের চেষ্টা করলেও অনুমতি দেওয়া হয় না। পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতন জীবন-যাপন করছি আমরা।

মিলের অবসরপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মজিবুল হক খন্দকার বলেন, ১৯৭৫ সাল থেকে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ৪৩ বছর চাকরি করি। চাকরি থেকে অবসর নেয়ার পর আমার বকেয়া বেতন ও অবসরকালীন ভাতা আদায়ে ব্যর্থ হয়েছি। বর্তমানে মিল কর্তৃপক্ষ তাদের সাথে যোগাযোগের সুযোগও দিচ্ছে না।

অবিলম্বে তাদের ন্যায্য পাওনা পরিশোধ করা না হলে কঠোর কর্মসূচি গ্রহণ করার দূঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন শ্রমিক-কর্মচারীরা।


আরো সংবাদ