২৪ অক্টোবর ২০১৯

কাবিননামা রেকর্ড না করায় দুই কাজী কারাগারে

কুমিল্লায় ভুয়া কাবিননামার মাধ্যমে আমেনা আক্তার শিখা নামে এক মেয়েকে বিয়ে দিয়ে প্রতারণার দায়ে মো. অলিউল্লাহ ভূঁইয়া ও মো. বেলাল উদ্দিন চৌধুরী নামে দুই কাজীকে (নিকাহ রেজিস্ট্রার) জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত। সোমবার কুমিল্লার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ আদালতের স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট প্রদীপ কুমার দত্তের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারক এম.এ আউয়াল এ আদেশ দেন।

জানা যায়, গত ৩ জুলাই কুমিল্লা নগরীর রেইসকোর্স এলাকার এনায়েত আলীর ছেলে আতিকুর রহমান নিলয়ের সাথে চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি উপজেলার দেবকরা গ্রামের শাহাবুদ্দিনের মেয়ে আমেনা আক্তার শিখার বিয়ে সম্পন্ন করেন কুমিল্লা নগরীর সদর দক্ষিণ উপজেলার (সিটি কর্পোরেশনের ২১নং ওয়ার্ড) মধ্যম আশ্রাফপুর এলাকার নিকাহ ও তালাক রেজিস্ট্রার কাজী মাওলানা মো. অলিউল্লাহ ভূঁইয়া ও তার সহকারী জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কাগাইশ (ধোড়করা) গ্রামের মৃত ইদ্রিস মিয়া চৌধুরীর ছেলে মো. বেলাল উদ্দিন চৌধুরী। বিয়ের পর থেকে শিখার স্বামী ও পরিবারের লোকজন যৌতুকের দাবিতে অত্যাচার নির্যাতন শুরু করলে শিখা বাদী হয়ে তার স্বামী, শশুর ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে গত ১৬ সেপ্টেম্বর কুমিল্লার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর আদালতে বিয়ের কাবিননামা সংযুক্ত করে মামলা দায়ের করেন।

আদালতের স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট প্রদীপ কুমার দত্ত জানান, কাজী ও তার সহকারীকে আদালতে হাজির করা হলে তারা ওই বিয়ে ও কাবিননামা সম্পাদন করেছেন এবং তা রেজিস্ট্রারে রেকর্ড করেননি বলে আদালতে স্বীকার করেন। এ ধরণের কাবিননামা সৃষ্টি করে বিয়ে ও প্রতারণার প্রতিকার চেয়ে আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত তাদেরকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।


আরো সংবাদ