০৮ ডিসেম্বর ২০১৯

দুই কিশোর ও গেটম্যানের বুদ্ধিমত্তায় রক্ষা পেল যাত্রীবাহী ট্রেন

কুমিল্লা রেল স্টেশনের অদূরে মূড়াপাড়া লেভেল ক্রসিং এলাকায় রেল রাস্তায় বালুভর্তি ট্রাক আটকে বৃহস্পতিবার দুর্ঘটনায় পড়তে যাচ্ছিল। তবে গেটম্যানের সহযোগিতা ও স্থানীয় দুই কিশোরের বুদ্ধিমত্তায় বড় ধরনের দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেল ‘চট্টলা এক্সপ্রেস’ ট্রেনের কয়েকশ’ যাত্রী।

কিশোর সুমন ও সুজন জানায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে কুমিল্লার আদর্শ উপজেলার ২ নং উত্তর দূর্গাপুর মূড়াপাড়া রেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় রেলের ডাবল লাইনের কাজে ব্যবহৃত বালুবাহী একটি ড্রাম ট্রাক রেল রাস্তার ওপর উল্টে যায়। এসময় সিএনজি অটোরিকশা চালক সুমন (১৭) এবং ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালক সুজন (১৮) বিষয়টি দেখতে পেয়ে ক্রসিংয়ের গেটম্যান টিপুকে জানায়। তাৎক্ষণিকভাবে গেটম্যান টিপু কুমিল্লা রেলস্টেশনে খবর নিয়ে জানতে পারে যে, ইতোমধ্যে চট্টগ্রামগামী চট্টলা এক্সপ্রেস ট্রেনটি রসুলপুর স্টেশন থেকে ছেড়ে এসেছে।

এসময় গেটম্যান টিপু সুমন ও সুজনকে সাথে নিয়ে অটোরিকশা যোগে আধা কিলোমিটার উত্তরে গোমতী ব্রিজ এলাকায় গিয়ে লাল পতাকা উঠিয়ে ‘চট্টলা এক্সপ্রেস’ ট্রেনটিকে থামানোর সংকেত দেয়। সংকেত পেয়ে ট্রেনটি ইমার্জেন্সি ব্রেক চেপে দুর্ঘটনার ক্রসিংয়ের ১শ গজ দূরে এসে থেমে যায়। এসময় ট্রেনের যাত্রীদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়।

প্রায় দেড় ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর দুর্ঘটনা কবলিত ট্রাকটিকে সরিয়ে নেয়ার পর চট্টলা এক্সপ্রেস ট্রেনটি চট্টগ্রামের উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

মুড়াপাড়া লেভেল ক্রসিং গেইটম্যান মো. টিপু জানান, রেলওয়ের ডাবল লাইন প্রজেক্টের একটি বালুভর্তি ট্রাক সন্ধ্যায় লেভেল ক্রসিং গেইটের ওপর বিকল হয়ে পড়ে। সেসময় রসুলপুর থেকে কুমিল্লা ছেড়ে আসছিল চট্টলা এক্সপ্রেস। আমি স্থানীয় দুই যুবকের সহযোগিতায় দৌঁড়ে গিয়ে লাল পতাকা দিয়ে থামানোর সংকেত দিলে ইমার্জেন্সি ব্রেক করে দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পায় চট্টলা এক্সপ্রেস ও কয়েকশ যাত্রীরা।

কুমিল্লা রেল স্টেশনের সহকারী স্টেশন মাস্টার রাফাতুল ইসলাম জানান, চট্টগ্রাম অভিমুখী চট্টলা এক্সপ্রেস একটি বড় ধরনের দুর্ঘটনা থকে রক্ষা পায়। এদিকে কুমিল্লা রেল স্টেশনে আটকা পড়ে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা অভিমুখী মহানগর গোধূলি এবং রসুলপুর পুরাতন রেল স্টেশনে আটকে পড়ে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম অভিমুখী সুবর্ণ এক্সপ্রেস। এরপর রেলের উদ্ধারকর্মী ও কুমিল্লা কোতয়ালী থানার পুলিশের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ট্রাক থেকে বালু ফেলে লাইন থেকে ট্রাকটিকে উদ্ধার করে। এতে এতে কুমিল্লা থেকে ঢাকার রেল যোগাযোগ প্রায় দেড় ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর চলাচল স্বাভাবিক হয়। এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ পরবর্তী করণীয় বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

কুমিল্লা রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মেছবাহ উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজের তদারকি করেছি। এ ব্যাপারে এখনও কোনো মামলা দায়ের হয়নি।

এদিকে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল হক জানান, খবর পেয়ে আমি ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হই। ট্রাকটিকে উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।

সূত্র ইউএনবি


আরো সংবাদ