১৯ জানুয়ারি ২০২০

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে চাঁদপুরে আইনজীবীদের বিক্ষোভ

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে চাঁদপুরে আইনজীবীদের বিক্ষোভ - ছবি : নয়া দিগন্ত

‘আমরা ন্যায়বিচার চাই’ স্লোগানে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশে করেছে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম চাঁদপুর জেলা ইউনিট।

আজ বুধবার দুপুরে চাঁদপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালত প্রাঙ্গণে এই বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সলিম উল্লাহ সেলিম।

তিনি তার বক্তব্যে বলেন, শেখ হাসিনার সরকার বড় দুর্নীতিবাজ। খালেদা জিয়ার বয়স ৭৫ বছর। তিনি একজন অসুস্থ মহিলা। তাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে জেলে আটক করে রাখা হয়েছে। আইনের বিধানে আছে বয়স্ক ও অসুস্থ নারীদের জামিন দেয়া হয়।

তিনি আরো বলেন, খালেদা জিয়াকে জামিন দিতে হবে। জামিন দিয়ে আপনারা ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করুন। যদি জামিন দেয়া না হয়, তাহলে চাঁদপুরের আদালত প্রাঙ্গণ থেকে আন্দোলন চলবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত, রাস্তা-ঘাট বন্ধ করে দেয়া হবে। এই সরকারকে টেনে-হেঁচড়ে নামানো হবে।

জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম চাঁদপুর জেলা ইউনিটের সভাপতি অ্যাডভোকেট কামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. জাহাঙ্গীর খানের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয়তাবাদী মহিলাদল চাঁদপুর জেলা সভাপতি অ্যাড. মুনিরা বেগম চৌধুরী, শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. হারুনুর রশিদ, চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহীম খলিল, অ্যাড. জহির উদ্দিন বাবার, সিনিয়র আইনজীবী অ্যাড. দুলাল মিয়া পাটওয়ারী, অ্যাড. শরীফ মো: শাহীন, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সদস্য অ্যাড. ইমরান হোসনে, অ্যাড. শিরিন আক্তার, অ্যাড. মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, একটি সাজানো মামলায় ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে খালেদা জিয়াকে জেলে আটকে রাখা হয়েছে। বিচারপতিদের উপর আস্থা হারিয়ে ফেলেছি আমরা। জামিন পাওয়া একটি নাগরিকের অধিকার। এ সরকার বলছে, দেশ উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে, কিন্তু প্রতিনিয়ত খবরের কাগজে দেখা যায়, প্রতিদিন ধর্ষণ হচ্ছে, পুঁজিবাজার ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। খালেদা জিয়ার মুক্তি দেয়া না হলে আমরা চাঁদপুর থেকেই কঠোর আন্দোলন শুরু করবো।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অ্যাড. মিজানুর রহমান, অ্যাড. তাফাজ্জল হোসেন, অ্যাড. নাজিম উল্যাহ বাকী, অ্যাড. আব্দুল্লাহিল বাকী, অ্যাড. শাহাজাহান মিয়া প্রমুখ।


আরো সংবাদ