২২ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৪, ১ সফর ১৪৩৯

সালমান শাহ্‌র জন্য যা করতে চান শাকিব

সালমান শাহ্‌র জন্য যা করতে চান শাকিব - ছবি : সংগৃহীত

সালমান শাহ্ আর শাকিব খান। আলাদা সময়ে দুজনেই বাংলাদেশী চলচ্চিত্রের রাজপুত্র। তবে শাকিব খান নিজেকে কখনো সালমানের সাথে তুলনা দিতে চাননা। কারণ সালমান শাহকে ভালোবেসেই তিনি আজকের জায়গায়। শাকিব বলেন, হলে গিয়ে প্রথম যে ছবি দেখেছিলাম সেটার নায়ক ছিলেন সালমান শাহ। সেই থেকে তিনি আমার মনে আছেন শ্রদ্ধার আসনে।

বৃহস্পতিবার সালমান শাহ্‌র জন্মদিন উপলক্ষে মধুমিতা সিনেমা হলে অনুষ্ঠিত ‘সালমান শাহ্‌ জন্মোৎসব-২০১৯’-এর উদ্বোধনী বক্তব্যে এই মন্তব্য করেন শাকিব

শাকিব খান বলেন, আজ এমন এক মহান শিল্পীর জন্মদিন, যার মৃত্যুর এত বছর পরও তিনি জনপ্রিয়। সালমান ভাই নেই আমাদের মাঝে। কিন্তু তার জন্মদিনে, মৃত্যু দিনে, প্রতিটি মুহূর্তে তাকে সবাই স্মরণ করছে।

সালমান শাহ্‌র ছবি দেখার স্মৃতিচারণ করে শাকিব খান বলেন, আমি নিজে ছোটবেলা থেকেই সালমান শাহ’র ভক্ত। সবার মতো আমিও হলে গিয়ে তার সিনেমা দেখেছি। মনে পড়ে হলে গিয়ে আমার প্রথম সিনেমা দেখা স্কুলে পড়ার সময়। সেটা ছিলো সালমান শাহ্‌র সিনেমা। আমার ভীষণ পছন্দের নায়ক ছিলেন তিনি। আজ তার জন্মদিনের কেক কাটতে পারাটা আমার জন্য সৌভাগ্যের ব্যপার। খুব আনন্দ হতো আজ যদি সালমান ভাই আমার পাশে থাকতেন।

বক্তব্যের এক পর্যায়ে সালমান শাহ্‌র ভক্তরা শাকিব খানের কাছে দাবি জানান, যেন বিএফডিসির কোনো ফ্লোরের নাম সালমান শাহ্‌র নামানুসারে করা হয়। সেই দাবির জবাবে শাকিব বলেন, এটা আরও আগেই হওয়া উচিত ছিলো। দুই একদিনের মধ্যেই আমি এফডিসিতে শুটিং করবো। তখন এফডিসি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ করে দাবি করবো যেন সালমান শাহের নামে কিছু করা হয়। তার নামে রাস্তা বা একটা সিনেমা হলের নামকরণ হওয়া উচিৎ।

এরপর অন্যান্য অতিথিদের সঙ্গে নিয়ে সালমান শাহ্‌র জন্মদিনের কেক কাটেন শাকিব খান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নির্মাতা সোহানুর রহমান সোহান, চিত্রনায়িকা বুবলী, জাহারা মিতু, গানবাংলা টিভি ও টিএম ফিল্মসের চেয়ারম্যান ফারজানা মুন্নী এবং আয়োজকরা। এছাড়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

‘সালমান শাহ্‌ জন্মোৎসব-২০১৯’-এর আয়োজন করেছে ঢুলি কমিউনিকেশনস। ২০ সেপ্টেম্বর থেকে ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৭ দিনব্যাপী এই আয়োজন চলবে। এতে সালমান শাহ্‌ অভিনীত ৭টি সিনেমা দেখানো হবে মধুমিতা সিনেমা হলে। সিনেমাগুলো হচ্ছে, ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’, ‘তোমাকে চাই’, ‘মায়ের অধিকার’, ‘চাওয়া থেকে পাওয়া’, ‘স্বপ্নের পৃথিবী’, ‘অন্তরে অন্তরে’ ও ‘সত্যের মৃত্যু নেই’।


আরো সংবাদ