১৯ জুলাই ২০১৯
মহানগর জমিয়তের কাউন্সিল

নারী নির্যাতন বন্ধে আলেমদের রাস্তায় নামতে হবে : নূর হোসাইন কাসেমী

জাতীয় প্রেস ক্লাবে গতকাল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কাউন্সিলে নেতৃবৃন্দ : নয়া দিগন্ত -

জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী বলেছেন, বর্তমানে দেশে মানুষের জীবনের কোনো নিরাপত্তা নেই। নারীদের ইজ্জতের কোনো নিরাপত্তা নেই। দেশ মাদক-সন্ত্রাসে ভরে গেছে। এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে প্রয়োজনে আলেম সমাজকে দায়িত্ব নিতে হবে। নারী নির্যাতন, খুন বন্ধে আমাদের রাস্তায় নামতে হবে। প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।
জাতীয় প্রেস ক্লাব অডিটোরিয়ামে গতকাল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ঢাকা মহানগরীর কাউন্সিল অধিবেশনে প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দীর সভাপতিত্বে এবং মহানগর জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মতিউর রহমান গাজীপুরী, মুফতি বশিরুল হাসান খাদিমানী, মাওলানা নূর মুহাম্মদ কাসেমী ও মাওলানা মাহবুবুল আলমের যৌথ পরিচালনায় কাউন্সিলে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, দলের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মাওলানা আবদুর রব ইউসুফী, মাওলানা জুনায়েদ আল হাবীব, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়া, মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী, সহসাধারণ সম্পাদক মাওলানা ছানাউল্লাহ মাহমুদী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা নাজমুল হাসান, সহসাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আফজল হোসাইন রাহমানি, মুফতি নাসির উদ্দীন খান, প্রচার সম্পাদক মাওলানা জয়নুল আবেদীন, অফিস সম্পাদক মাওলানা আবদুর গফফার ছয়ঘরী, যুব জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ইসহাক কামাল ও ছাত্র জমিয়ত সভাপতি মাওলানা এখলাসুর রহমান রিয়াদসহ মহানগরীর দায়িত্বশীল ও বিভিন্ন থানা থেকে আগত কাউন্সিলররা।
নূর হোসাইন কাসেমী বলেন, সরকার মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। রাতের আঁধারে ভোট ডাকাতি করে ক্ষমতায় আসায় সরকারের জনগণের দিকে কোনো দৃষ্টি নেই। দেশের পাঠ্যপুস্তকে ডারউইনের বিবর্তনবাদ পড়ানো হচ্ছে। এ মতবাদ প্রকৃত অর্থে একটি কুফরি মতবাদ। বাংলাদেশের মতো একটি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশে নবম-দশম শ্রেণী থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত পাঠ্যপুস্তকে এ রকম কুফরি মতবাদের জায়গা কিভাবে হলো তা খুবই দুশ্চিন্তার বিষয়। মূলত পাঠ্যপুস্তকে ডারউইনের এই কুফরি মতবাদকে অন্তর্ভুক্ত করে মুসলিম শিক্ষার্থীদেরকে নাস্তিক্যবাদের দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। আল্লামা কাসেমী এ সময় রোহিঙ্গা মুসলমানদের মিয়ানমারের নাগরিকত্ব দিয়ে তাদেরকে সেদেশে সম্মানজনকভাবে অবিলম্বে ফেরত দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।
কাউন্সিলে আগামী তিন বছর মেয়াদের জন্য মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দীকে সভাপতি ও মাওলানা মতিউর রহমান গাজীপুরীকে সাধারণ সম্পাদক, মাওলানা মুফতি নূর মুহাম্মদ কাসেমীকে সাংগঠনিক সম্পাদক, মুফতি ইমরানুল বারী সিরাজীকে প্রচার সম্পাদক, মাওলানা সাইফুদ্দীন ইউসুফ ফাহিমকে যুব বিষয়ক সম্পাদক ও মুহাম্মদুল্লাাহ কাসেমীকে করে ১১২ সদস্য বিশিষ্ট ঢাকা মহানগর জমিয়তের কমিটি ঘোষণা করা হয়। পরে কাউন্সিলে ৭ দফা প্রস্তাব সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়।

 


আরো সংবাদ