১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পরীক্ষা ছাড়াই ভর্তি প্রসঙ্গে টিআইবি মেধাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য এটা অশনিসঙ্কেত

-

ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ে পরীক্ষা ছাড়াই ছাত্র ভর্তির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। উত্থাপিত অভিযোগের ভিত্তিতে দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠের ভর্তিপ্রক্রিয়া নিয়ে আস্থার সঙ্কট আরো ঘনীভূত হয়েছে উল্লেখ করে সৎসাহসের সাথে অভিযোগ আমলে নিয়ে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত এবং দায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছে সংস্থাটি। সংস্থাটি মনে করে উত্থাপিত অভিযোগ বাংলাদেশে উচ্চশিক্ষার ভবিষ্যৎ তথা মেধাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার সব প্রত্যাশার জন্য অশনিসঙ্কেত।
নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে যাদের বিশ^বিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ দেয়া হয়েছে তাদের অনেকে ডাকসু নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন। গণমাধ্যমে প্রকাশিত এ খবরের সূত্র ধরে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, অভিযোগ সঠিক হলে তা হবে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারণার শামিল। তিনি বলেন, উত্থাপিত অভিযোগ বাংলাদেশে উচ্চশিক্ষার ভবিষ্যৎ তথা মেধাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার সব প্রত্যাশার জন্যই অশনিসঙ্কেত। এক দিকে বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার গুণগত মান নিশ্চিত করা যেমন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের মতো প্রতিষ্ঠানের জন্য অপরিহার্য, অন্য দিকে নিয়মনীতি অনুসরণ করে সমান প্রতিযোগিতার ক্ষেত্র নিশ্চিত করে ভর্তিপ্রত্যাশী সব শিক্ষার্থীদের সমান অধিকার প্রতিষ্ঠা করাও তেমন কর্তৃপক্ষের গুরুদায়িত্ব। এক্ষেত্রে কোনো প্রকার ব্যত্যয় বিশ^বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে না বলে আমরা বিশ^াস করতে চাই। বিশ^বিদ্যালয়ে ছাত্রত্বের অবস্থাকে রাজনৈতিক বা অন্যকোনো সুবিধা অর্জনের মাধ্যম হিসেবে পরিণত করার যেকোনো প্রয়াসকে কর্তৃপক্ষ প্রতিহত করবেন, আমরা এই প্রত্যাশা করি। অন্যথায় Í গুণগত শিক্ষার প্রসারের মাধ্যমে যুগোপযোগী বৈশি^ক পরিপ্রেক্ষিতে যোগ্য মানবসম্পদ গড়ে ওঠার জন্য যুব সমাজের যে স্বপ্ন তা ধূলিস্যাৎ হবে। রাজনৈতিক বিবেচনায় বা অন্যকোনো সাময়িক সুবিধা অন্বেষী স্বার্থান্বেষী চক্রান্তের কাছে জিম্মি হয়ে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে এ ধরনের আত্মঘাতী অবস্থান প্রতিরোধের আহ্বান জানায় টিআইবি।
উত্থাপিত অভিযোগের নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের চিহ্নিত করতে এবং দৃষ্টান্তমূলক জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হলে এই অনিয়ম প্রাতিষ্ঠানিক রূপ লাভ করবে। এতে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলেও আস্থাহীনতার শিকার হবে।


আরো সংবাদ