১৭ নভেম্বর ২০১৯

২২ দিন সব কোচিং সেন্টার বন্ধ

জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা
-

আগামী ২ নভেম্বর থেকে ১১ নভেম্বর পর্যন্ত অষ্টম শ্রেণীর জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও মাদরাসার জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষার সময় সব ধরনের কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। গতকাল পরীক্ষাসংক্রান্ত জাতীয় মনিটরিং ও আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সভায় এ পরীক্ষার ব্যাপারে ২০ দফা নির্দেশনা-কর্মপরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। সেটি বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
এ দিকে গতকাল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে অনুষ্ঠিত বৈঠক শেষে শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি সাংবাদিকদের বলেন, ২৫ অক্টোবর থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে। সেজন্য হয়তো যারা জেএসসি-জেডিসির শিক্ষার্থী নয়, তার বাইরে যারা আছে তাদের সাময়িক কিছু অসুবিধা হবে। কিন্তু প্রশ্নফাঁস মুক্ত পরীক্ষার স্বার্থে এটির বিকল্প এখনো আমরা বের করতে পারিনি। মন্ত্রী বলেন, প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার পরও কোচিং বাণিজ্যের লাগাম টেনে ধরতে না পারা পর্যন্ত এই ব্যবস্থা নিতেই হচ্ছে। শিক্ষামন্ত্রী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশ্নফাঁস বা কোনো প্রতারণা করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।
বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, পাবলিক পরীক্ষায় প্রশ্নের নিরাপত্তা ও পরীক্ষা গ্রহণের সময়ে পরীক্ষার্থীদের ব্যাপারে বিগত বছর যে সব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল, সেগুলোকেই যথাযথভাবে যাতে প্রতিপালন করা হয়, তারই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। যেমন, পরীক্ষার্থীদের ৩০ মিনিট আগে কেন্দ্রে প্রবেশ, দেরি করে প্রবেশ করলে রোল নম্বর, প্রবেশের সময়, বিলম্ব হওয়ার কারণ লিপিবন্ধ করে পরীক্ষা শেষে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডে প্রতিবেদন পাঠানো, কেন্দ্রসচিব ছাড়া পরীক্ষাকেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার না করা, স্মার্টফোন নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ না করা, আইন অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা, জেলার ক্ষেত্রে ট্রেজারি এবং উপজেলার ক্ষেত্রে থানা লকারে প্রশ্নপত্রের ট্রাংক সংরক্ষণ, ট্রেজারিতে রক্ষিত প্রশ্নপত্র পরীক্ষা শুরুর তিন দিন আগে দিনভিত্তিক ও সেটভিত্তিক সর্টিং করে সিকিউরিটি খামে সংরক্ষণ, জেলা ট্রেজারিতে জেলা প্রশাসক মনোনীত একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার উপস্থিতিতে প্রশ্নপত্র সর্টিং করা, প্রশ্নপত্র গ্রহণ ও পরিবহন কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা, শিক্ষক, কর্মচারীরা কোনো ফোন ব্যবহার না করা, প্রশ্নপত্র বহন কাজে কালো কাচযুক্ত মাইক্রোবাস বা এরূপ কোনো যানবাহন ব্যবহার না করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
সভায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মুনশী শাহাবুদ্দীন আহমেদ, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. সৈয়দ মো: গোলাম ফারুক, বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান, বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।


আরো সংবাদ