২১ নভেম্বর ২০১৯

খুলনায় ব্যাটারিচালিত রিকশা ধর্মঘট চতুর্থ দিনে, নগরবাসীর দুর্ভোগ

-

ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধের প্রতিবাদে খুলনা মহানগরীতে সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট গতকাল বৃহস্পতিবারও অব্যাহত ছিল। অপর দিকে খুলনা সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধের জন্য চার্জিং পয়েন্টের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গত তিন দিনে ৮৫টি চার্জিং পয়েন্টে অভিযান চালিয়ে ৩৪টির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।
কেসিসির নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) জাহিদ হোসেন বলেন, বুধবার মহানগরীর ২৪, ২৫ ও ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে অভিযান চালানো হয়। এ তিনটি ওয়ার্ডের ২২টি পয়েন্টে অভিযান চলে। এর মধ্যে ১৩টি পয়েন্টের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। ১৪ অক্টোবর ১৩টি পয়েন্টের মধ্যে ৮টি ও ১৫ অক্টোবর ৫০টির মধ্যে ১৩টি পয়েন্টের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।
এদিকে ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধে কেসিসির চূড়ান্ত ঘোষণার পর গত বুধবার থেকে মহানগরীতে সে ধরনের কোনো রিকশা চলাচল করছে না। চালকরা রিকশা চালানো বন্ধ রেখে বুধবার মানববন্ধন করেন। গত বুধবার চালকরা নগরভবনের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন। এ অবস্থায় নগরজুড়ে মানুষ ব্যাপক দুর্ভোগে পড়েছেন। পায়ে চালিত রিকশা সীমিত সংখ্যায় চলাচল করছে। প্রয়োজনের তুলনায় রিকশার সংখ্যা কম হওয়ায় নগরবাসীকে দীর্ঘসময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে। যেসব রিকশা পাওয়া যায় তারা যাত্রীদের কাছে ভাড়া আদায় করছে দ্বিগুণ। তবে পায়ে চালিত রিকশার সংখ্যা বাড়ছে। এছাড়া নগরীর সব জায়গায় ইজিবাইকসহ অন্যান্য বিকল্প যানবাহন পাওয়া যায় না। যদিও দুই একটা মেলে তাদের ভাড়া চোকাতে হচ্ছে দুই-তিন গুণ বেশি।
কয়েকজন রিকশাচালকের সাথে কথা বললে তারা জানান, পেটের দায়ে নেমেছি। এখন মেয়র ঘোষণায় দেয়ায় ব্যাটারি খুলে রেখে রিকশা চালাচ্ছি। বসে থাকলে পরিবার না খেয়ে থাকবে। অনেক দিন পর এখন পায়ে চালাতে বড় কষ্ট। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ইজিবাইকের জন্য যে নিয়ম করে দেয়া হয়েছে, তা তারা মানছে না। কিন্তু রিকশাচালকরা গরিব মানুষ। তাদের তা মানতে হচ্ছে।
ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ভ্যান শ্রমিক লীগ খুলনা মহানগরের সহ-সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান বলেন, অভাবের তাড়নায় দু-একজন রিকশা চালাচ্ছেন। আমাদের দাবি না মানলে আমরা সব রিকশা বন্ধ করে দেবো। বুধবার মানববন্ধন ও বৃহস্পতিবার নগর ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছি। শুক্রবার থেকে হাদিস পার্কে লাগাতার অনশন শুরু করব।


আরো সংবাদ