২০ নভেম্বর ২০১৯

রাস্তার কাজের মান খারাপ হলে বিল দেয়া হবে না : মেয়র আতিক

-

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো: আতিকুল ইসলাম বলেছেন, আমরা যেসব রাস্তা করছি, সেগুলোতে আগে পানি নিষ্কাশন নিশ্চিত করছি। পানি নিষ্কাশন না হলে রাস্তা বানাতে টাকা ঢেলে লাভ নেই। কাজের মান ঠিক রাখতে ঠিকাদারের প্রতি নির্দেশ দিয়ে মেয়র আরো বলেন, কাজ তদারকি করার জন্য তৃতীয় পক্ষকে দায়িত্ব দেয়া হবে। তারা যেকোনো সময় রাস্তার নমুনা কাটিং করে বুয়েটে পাঠাবে। যদি উপকরণগুলো ঠিক না থাকে, অর্থাৎ কাজের মান খারাপ হলে ডিএনসিসি বিল দেবে না।
গতকাল রাজধানীর উত্তরা ৪ নম্বর সেক্টরের ৩ নম্বর সড়কে সড়ক উন্নয়ন কাজের উদ্বোধনকালে মেয়র এ কথা বলেন। আতিকুল ইসলাম আরো বলেন, জনগণের টাকায় রাস্তা করছি, আর সেই রাস্তায় গাড়ি পার্কিং করে রাখবে এটা হবে না। আমরা রাস্তায় সেন্সর বসিয়ে স্মার্ট কার পার্কিং সিস্টেমে যাচ্ছি। রাস্তায় গাড়ি পার্ক করলেই আমাদের কাছে সব তথ্য চলে আসবে। নির্দিষ্ট চার্জ দিয়ে গাড়ি রাস্তায় রাখতে পারবেন।
অনুষ্ঠানের অতিথি স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন বলেন, ডিএনসিসির সব কাজে এলাকার সংসদ সদস্য হিসেবে আমি সহযোগিতার আশ্বাস দিচ্ছি। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ডিএসসিসির প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাঈদ আহমেদ, আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা জুলকার নায়ন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
ডিএনসিসির কর্মকর্তারা জানান, প্রকল্পের আওতায় উত্তরার ৪ নম্বর সেক্টরের ৩ নম্বর সড়ক (সড়ক নম্বর ৯ হতে সার্ভিস রোড), ২০, ২০/এ, ২০/বি, ২০ডি, ১৮ ও ৭ নম্বর সড়কের উন্নয়ন করা হবে। এ ছাড়া এ প্রকল্পের আওতায় ৬ নম্বর সেক্টরের ১৩, ১৩/এ (বিএনসিসি সংলগ্ন), ১৫ এবং ১৬ নম্বর সড়কেরও উন্নয়ন করা হবে। প্রকল্পটির আওতায় মোট ২.৮৭৪ কিলোমিটার সড়ক, ৪.৯৪৮ কিলোমিটার ফুটপাথ, ৪.৯৪৮ কিলোমিটার আরসিসি নর্দমা এবং ১০৫০ মিলিমিটার ডায়াপাইপ বিশিষ্ট ৪০০মিটার নর্দমা নির্মাণ করা হবে। প্রায় ১৭ কোটি ৯৫ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটির কাজ আগামী বছরের মে মাসের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মাইশা কনস্ট্রাকশন (প্রা:) লিমিটেড কাজটি সম্পাদনের দায়িত্ব পেয়েছে।

 


আরো সংবাদ