২১ নভেম্বর ২০১৯

সিনেমা হল মালিকদের নতুন কমিটি নিয়ে বিতর্ক

-

আগামী ২৫ অক্টোবর চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন। নির্বাচন ঘিরে নানা বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এর আগে নীরবে গঠিত হয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নতুন কমিটি। সংগঠনের নির্ধারিত কাগজে ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নির্বাচন ২০১৯-২১, চূড়ান্ত ফলাফল’ শীর্ষক এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।
নির্বাচন বোর্ডের সভাপতি সুদীপ্ত কুমার দাস, সদস্য মোজাহারুল ইসলাম ওবায়েদ ও জাহিদ হোসেনের স্বাক্ষর করা এক চিঠিতে জানানো হয়, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নির্বাচনের (২০১৯-২১) সংশোধিত তফসিল অনুযায়ী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নতুন সভাপতি হয়েছেন কাজী শোয়েব রশিদ ও সাধারণ সম্পাদক আওলাদ হোসেন।
অন্য পদে নির্বাচিতরা হলেন : সহ-সভাপতি মিঞা আলাউদ্দিন ও আমির হামজা, সহ-সাধারণ সম্পাদক শরফুদ্দিন এলাহী ও খোরশেদ আলম, কোষাধ্যক্ষ আজগর হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হোসেন, সাংস্কৃতিক, সমাজকল্যাণ ও আইনবিষয়ক সম্পাদক আর এম ইউনুস।
কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য উত্তম কুমার সিংহ রায়, রফিক উদ্দিন, রবিউল ইসলাম, ফারুক হোসেন, আশরাফুল ইসলাম ও সুমন কুমার সাহা।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০১৯-২১ মেয়াদের সংশোধিত তফসিল অনুযায়ী কর্মকর্তা পদে প্রাপ্ত মনোনয়নপত্রগুলো যাচাই-বাছাইয়ের পর সব মনোনয়নপত্র বৈধ বিবেচিত হওয়ায় এবং একটি পদের বিপরীতে একটি করে বৈধ মনোনয়নপত্র দাখিল হওয়ায় সবাইকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করা হলো।
এদিকে এ সংগঠনের আগের সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, তিনি এই নির্বাচনের কিছুই জানেন না। সর্বশেষ কমিটির সভাপতি মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন বলেন, গত ছয় মাসে সমিতির কোনো কার্যক্রমে তাকে ডাকা হয়নি এমনকি জানানোও হয়নি। তার অভিযোগ সমিতির কয়েকজন সদস্য নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য নিজেদের মতো কমিটি করেছেন। এর মধ্যে অনেকেই কোনো সিনেমা হলের মালিক নন। নিজেরা প্রভাব খাটিয়ে এই কমিটি গঠন করেছেন তারা। তবে বর্তমান কমিটির নির্বাচিতদের দাবি, তারা নিয়ম মেনেই নতুন কমিটি গঠন করেছেন।


আরো সংবাদ