২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০

সরকারি প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে ১৪ জেলার ফলাফল হাইকোর্টে স্থগিত

-

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগে ১৪ জেলার ঘোষিত ফলাফল ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। জেলাগুলো হলোÑ পটুয়াখালী, মাদারীপুর, সিরাজগঞ্জ, নওগাঁ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, হবিগঞ্জ, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, নোয়াখালী, যশোর, সাতক্ষীরা, টাঙ্গাইল, বরগুনা ও ঠাকুরগাঁও।
৪৬ জন চাকরিপ্রত্যাশীর করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও মো: মাহমুদ হাসান তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ গতকাল এ আদেশ দেন।
আদালতে রিটকারীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো: আসাদ উদ্দিন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।
পরে আইনজীবী আসাদ উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, ২০১৩ সালের সরকারি প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালার সপ্তম ধারায় বলা হয়েছে, এই বিধিমালার অধীন সরাসরি নিয়োগযোগ্য পদের ৬০ শতাংশ নারী প্রার্থী, ২০ শতাংশ পোষ্য প্রার্থী এবং বাকি ২০ শতাংশ পুরুষ প্রার্থী দিয়ে পূরণ করা হবে। কিন্তু গত ২৪ ডিসেম্বর ঘোষিত ফলে এই বিধি অনুসরণ করা হয়নি। তাই প্রতিকার চেয়ে ওই ফলের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদনটি করা হয়েছে। এতে আদালত শুনানি শেষে ১৪ জেলার ফলাফল স্থগিত করে রুল জারি করেন। এর আগে গত ১৫ জানুয়ারি নীলফামারী, বরগুনা, নওগাঁ ও ভোলা জেলার ফলাফল স্থগিত করেছিলেন হাইকোর্ট।
প্রসঙ্গত, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় গত ২৪ ডিসেম্বর প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষায় ১৮ হাজার ১৪৭ জন প্রার্থীকে বাছাই করে ফল প্রকাশ করে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ১৮ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ঘোষিত চূড়ান্ত ফলাফল কেন অবৈধ হবে না, এ মর্মে হাইকোর্টের অপর আরেকটি বেঞ্চ এর আগে রুল জারি করেছেন। নিয়োগপ্রার্থীদের করা রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৪ জানুয়ারি বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো: মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ ওই রুল জারি করেন।

 


আরো সংবাদ