২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

মিষ্টি কুমড়া ও রেডিওর সরব প্রচারণা ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে

ডিএসসিসি নির্বাচন
-

রাজধানীর আজিমপুর রোড, আজিমপুর এস্টেট, পলাশী ব্যারাক পশ্চিম ও দক্ষিণ, ইডেন মহিলা কলেজ হোস্টেল স্টাফ কোয়ার্টার, গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ, নীলক্ষেত সরকারি বাজার, লালবাগ রোড, বি সি দাস স্ট্রিট ও ঢাকেশ^রী রোড এলাকা নিয়ে গঠিত ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২৬ নং ওয়ার্ড। সরকারি-বেসরকারি একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অফিস এবং ভবন আছে এই ওয়ার্ডে। ভোটার ২৯ হাজার ৯৭৬ জন।
এলাকাবাসীর অভিযোগÑ এক সময়ের শান্ত ও নিরিবিলি আজিমপুর এস্টেট এলাকা এখন নানা সমস্যায় জর্জরিত। অনাকাক্সিক্ষত বাসস্ট্যান্ডের ফলে শব্দদূষণ ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। রয়েছে যত্রতত্র ময়লার স্তূপ, মশার উপদ্রব, সর্বোপরি মাদকের ব্যাপক ব্যবহার। তা ছাড়া গ্যাস, পানি, স্যুয়ারেজ আর বিদ্যুতের সঙ্কটও রয়েছে। অবশ্য ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট এলাকায় পানির লাইন মেরামত ও কিছু রাস্তা সংস্কার করা হয়েছে।
আজিমপুর কলোনির বাসিন্দা গোলাম সরোয়ারের অভিযোগÑ স্থানীয় কাউন্সিলর বা জনপ্রতিনিধি কেউই দায়িত্বশীল হয়ে এলাকার কাজ করেন না। নির্বাচনের পর তাদের আর তেমন পাওয়া যায় না। প্রায়ই পানির সঙ্কট ও বিদ্যুতের লোডশেডিং হয়। তরুণরা মাদকের ভয়াবহ ছোবলে আক্রান্ত। কিন্তু এসব রোধে কার্যকর কোনো উদ্যোগ নেই। এসব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বিবেচনায় নিয়েই তিনি এবার ভোট দিতে চান। আজিমপুর কলোনির বাসিন্দা খালেদ বলেন, লেগুনা আর অযাচিত বাসস্ট্যান্ডের কারণে এলাকায় শব্দদূষণ প্রকট আকার ধারণ করেছে। মসজিদ, মন্দির বা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে উচ্চ শব্দে হাইড্রোলিক হর্ন বাজানো হয়। এসব বিষয়ে সম্ভাব্য জনপ্রতিনিধি বা কাউন্সিলরদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।
এ দিকে আসন্ন ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে প্রচারণার মাত্রাও বাড়ছে। ২৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীরা ভোটারদের মধ্যে নানা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। বলছেন, নির্বাচিত হলে তারা এলাকার উন্নয়নে কাজ করবেন। এবার এই ওয়ার্ডে মোট চারজন কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক কমিশনার মীর আশরাফ আলী আজম মিষ্টি কুমড়া প্রতীকে ব্যাপক গণসংযোগ করছেন। আর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ থেকে রেডিও প্রতীকে লড়ছেন সদ্য সাবেক স্বতন্ত্র কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান মানিক। আরো দুই কাউন্সিলর প্রার্থী হলেন মো: হাসিব উদ্দিন রসি ঘুড়ি মার্কা এবং বদিউল আলম সুইট ঝুড়ি মার্কা। তবে স্থানীয়দের দাবিÑ মূল প্রতিযোগিতা হবে মিষ্টিকুমড়া আর রেডিও মার্কায়। সব প্রার্থী এবং তাদের কর্মী-সমর্থকেরা লিফলেট, পোস্টার ও ব্যানার নিয়ে নিজ নিজ মার্কায় দিনভর ব্যাপক গণসংযোগ করছেন। ছুটে চলছেন ভোটারদের বাড়ি বাড়ি। কাউকে না পেলে প্রতিবেশী বা নিকটস্থ কাউকে বলে আসছেন। স্ব স্ব মার্কায় ভোট প্রার্থনা করে গণসংযোগ করছেন তারা।
গতকাল আজিমপুর ছাপড়া মসজিদের পাশেই নির্বাচনী ক্যাম্পে কথা হয় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মীর আশরাফ আলী আজমের সাথে। মিষ্টি কুমড়া প্রতীক নিয়ে প্রচারণায় ব্যস্ত এই প্রার্থী নয়া দিগন্তকে বলেন, আমি দীর্ঘদিন কমিশনার ছিলাম। সে সময় যত উন্নয়ন হয়েছিল বর্তমানে বিগত এক দশকে তার ধারে কাছেও উন্নয়ন হয়নি। এখন এই ওয়ার্ডের গুরুত্বপূর্ণ সমস্যাগুলো হচ্ছেÑ মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, যানজট, অপ্রতুল স্যুয়ারেজ, গ্যাস-পানির সঙ্কট, সরু ও ভাঙ্গা রাস্তা, মানুষের কর্মসংস্থানের অভাব ইত্যাদি। আমি কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে উল্লিখিত বিষয় সমাধান করাই হবে আমার প্রথম প্রধান কাজ। নির্বাচনী প্রচারণা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ইতোমধ্যে গণসংযোগকালে একাধিকবার বাধার সম্মুখীন হয়েছি। ক্ষমতাসীন দলের লোকজন পোস্টার ছিঁড়ে ফেলছে। সম্প্রতি আমার ছোট ভাই মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি অবিলম্বে নেওয়াজের মুক্তি দাবি করেন। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তার বিজয় নিশ্চিত বলে তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।
অন্য দিকে রেডিও প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী হাসিবুর রহমান মানিক। ওয়েস্ট অ্যান্ড স্কুলের পাশে ফেরদাউস মসজিদের সামনে জুমার নামাজের আগে তিনি এই প্রতিবেদকের সাথে কথা বলেন। তিনি জানান, তার এলাকায় দায়িত্ব¡ পালনকালে অভাবনীয় উন্নয়ন করেছেন। যার সুফল এলাকার জনগণ পাচ্ছে। ইতোমধ্যে তিনি সজীব ওয়াজেদ জয়ের নামে ২২টি ফ্রি ওয়াই ফাই জোন করেছেন। বিভিন্ন রাস্তাঘাট সম্প্রসারণ ও সংস্কার করেছেন। মানিক দাবি করেন, তিনি ১৭০ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্প নিয়েছিলেন। তার মধ্যে ১২০ কোটি টাকার উন্নয়ন দৃশ্যমান। আজিমপুর কবরস্থানের সংস্কার, মসজিদ পুনর্নির্মাণ, শহীদ আব্দুল আলিম মাঠ সবুজায়ন ও রসুলবাগ পার্ক উদ্বোধন করা হয়েছে। তার এলাকা এলইডি লাইটের আওতাভুক্ত। ৭৩টি সিসি ক্যামেরা স্থাপন করেছেন। তবুও ২৬ নং ওয়ার্ডে এলাকাবাসীর ময়লা ফেলার নির্দিষ্ট কোনো স্থান নেই। তিনি পুনরায় কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে একটি সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশন (এসটিএস) নির্মাণ করবেন। ড্রেনেজ ব্যবস্থা উন্নত এবং যানজন নিরসনে যা করা দরকার তা-ই করবেন। বর্তমানে রেডিও মার্কার গণসংযোগে তিনি ভালো সাড়া পাচ্ছেন বলে জানান মানিক।

 


আরো সংবাদ