১৮ আগস্ট ২০১৯

‘ওয়ান-ম্যান শো’

’ওয়ান-ম্যান শো’
বিপিএলের ষষ্ঠ আসরের চ্যাম্পিযন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স - ক্রিকইনফো

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরের পুরো ফাইনাল ম্যাচটা কেবল ’ওয়ান-ম্যান শো’ ছিল। আর সেই ব্যক্তিটি ছিলেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল। দলের পুরো সংগ্রহের ৭০ ভাগই এসেছে তার ব্যাট থেকে। ১৯৯ রানের বাকি ৪৭ রান করেছেন দলের অন্য ব্যাটসম্যানরা।

৬১ বলে ১০টি বাউন্ডারি ও ১১টি ছক্কায় ১৪১ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেছেন তামিম। পুরো ব্যাপারটি এখনো স্বপ্ন মনে হচ্ছে জয়ের এই নায়কের কাছে। বলেন, ’সত্যি করে বলতে, মনে হচ্ছে এখনো স্বপ্ন দেখছি।’

তিনি বলেন, ‘আমি এখনো জানি না, কীভাবে ব্যাট করেছি। ম্যাচের হাইলাইটস দেখলে হয়ত বলতে পারব। তবে একটা সময় মেজাজ খুব খারাপ হয়েছিল, যখন এনামুল হক আউট হয়ে যান। তখন নিজেকে শান্ত রাখি এবং নতুন করে আবার শুরু করি। তবে আমি এ ব্যাপারে নিশ্চিত, হাইলাইটস দেখলে এ ব্যাপারে আরো ভালো করে বলতে পারব।’

সেঞ্চুরির পর তামিমের বাঁধভাঙা উদযাপন

 

নিজের পারফরমেন্সে আশ্চয তামিম আরো বলেন, ‘সত্যি করে বলছি, আমি কখনো ভাবিনি, এভাবে খেলতে পারব। কিন্তু আমার পরিকল্পনাটা আসলে খুব ভালো ছিল। আমি ঢাকার দুই সফল বোলার সাকিব আল হাসান আর সুনীল নারাইনকে আমার উইকেটটি দিতে চাইনি। শুধু একবার নারাইনের বলে একটি ছক্কা হাঁকিয়েছি। তবে একটা কথা বলতেই হবে, উইকেটটা অবিশ্বাস্যরকম ভালো ছিল। আমি পেসারদের জন্য অপেক্ষা করেছি।

তিনি আরো বলেন, ‘পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে, শুরুটা আমিই করেছিলাম। কিন্তু বেশিদূর যেতে পারিনি। হয়ত, শেষ ম্যাচটার জন্য সেরাটা পারফরমেন্সটা বাঁচিয়ে রেখেছিলাম।’

নান্দনিক ইনিংসের কারণে ম্যাচ সেরার খেতাব পেয়েছেন তামিম ইকবাল।


আরো সংবাদ