২৬ মার্চ ২০১৯

কোয়েটাকে একাই ফাইনালে তুললেন ওয়াটসন

শেন ওয়াটসন - ছবি : সংগৃহীত

বয়স ৩৮ হতে সামান্য বাকি, জাতীয় দল থেকে বাদ পড়েছেন অনেক আগেই; কিন্তু অজি বিগম্যান শেন ওয়াটসন যে এখনো ফুড়িয়ে জাননি তার প্রমাণ দিয়ে চলছেন নিয়মিত মাঠে। এবারের পাকিস্তান সুপার লিগে দাপটের সাথে খেলেছেন আসর জুড়ে। বলতে গেলে প্রায় একাই ফাইনালে নিয়েছেন দল কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সকে।

বুধবার রাতে প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে পেশোয়ার জালমিকে ১০ রানে হারিয়েছে কোয়েটা গ্লাডিয়েটর্স। এই ম্যাচে ব্যাটসম্যান ও বোলার উভয় ভূমিকায় দলকে জেতাতে অবদান রেখেছেন ওয়াটসন। ইনিংস ওপেন করতে নেমে ৪৩ বলে ৭১ রানের একটি টর্নেডো ইনিংস খেলেছেন। তার ইনিংসে ছিলো ৫টি চার ও ৬ ছক্কা। দ্বিতীয় উইকেটে আহসান আলীর(৪৬) সাথে গড়েছেন ১১১ রানের জুটি। ওয়াটসনের ব্যাটে ভর করেই সরফরাজ আহমেদের দল আগে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ১৮৬ রানের সংগ্রহ পায়।

এই রান তাড়া করতে নেমে পেশোয়ার জালমি জয়ের লক্ষ্যেই ছুটছিলো। টপ অর্ডার ভালো করতে না পারলেও অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি ও আরেক ক্যারিবীয় তারকা কাইরন পোলার্ডের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে জয়ের কাছে চলে যায় পেশোয়ার। ইনিংসের শেষ ওভারে জয়ের জন্য দরকার ছিলো ২১ রান। ক্রিজে তখন দুই হার্ডহিটার। সে সময় ওয়াটসনের হাতে প্রথমবারের মতো বল তুলে দেন সরফরাজ। শুধু এই ম্যাচে নয়, পুরো টুর্নামেন্টেই আর বোলিং করেননি ওয়াটসন। এমন গুরুত্বপূর্ণ সময়ে অনেকদিন বোলিং না করার একজন বোলারের হাতে বল তুলে দেয়া হয় শুধুমাত্র তার অভিজ্ঞতার ওপর ভর করে। সরফরাজের সেই আস্থার প্রতিদান দারুণভাবেই দেন ওয়াটসন।

প্রথম বলে স্যামি ১ রান নিলেও দ্বিতীয় বলে পোলার্ড ছক্কা মেরে ভয় ধরিয়ে দেন কোয়েটার সমর্থকদের বুকে। কিন্তু তৃতীয় বলেই দারুণ এক ডেলিভারিতে পোলার্ডকে বোল্ড করে দেন। পরের বলে তাড়াহুড়ো করতে নিয়ে রানআউট হন অধিনায়ক স্যামি। এখানেই শেষ হয়ে যায় ম্যাচ। পরের দুই বল থেকে মাত্র ৩ রান নিতে পারে পেশোয়ার। ফাইনালে চলে যায় কোয়েটা।

পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই দারুণ ফর্মে আছেন ওয়াটসন। তার আরো তিনটি ইনিংস আছে যথাক্রমে ৮১*, ৬১ ও ৯১* রানের। এক অঙ্কের ঘরে আউট হয়েছে মাত্র ২ বার। সব মিলে ৪ ম্যাচে ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার জিতেছেন। টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রান তারই। ১১ ম্যাচে ৪৭ গড়ে রান করেছেন ৪২৩। দ্বিতীয় স্থানে থাকা কলিন ইনগ্রামের সাথে তার রানের ব্যবধান ১০২ রানের। তাই টুর্নামেন্ট সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার যে তার হাতেই উঠতে যাচ্ছে তা অনেকটা নিশ্চিত।

২০১৬ সালের পর আর অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলে খেলা হয়নি ওয়াটসনের। তবে বিশ্বব্যাপী ফ্রাঞ্চাইজি লিগগুলোতে খেলে চলছেন নিয়মিত। গত বছর আইপিএল ফাইনালে চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে সেঞ্চুরি করে ধোনীর দলকে শিরোপা জিতিয়েছিলেন ওয়াটসন। এবার কোয়েটাকে তুললেন ফাইনালে। আগে দুবার ফাইনালে ওঠেও পিএসএল শিরোপা জেতা হয়নি কোয়েটার। এবার ওয়াটসন যদি পুরো টুর্নামেন্টের মতো ফাইনালে নিজেকে মেলে ধরতে পারেন তাহলে দলটির শিরোপার জন্য হাহাকার ঘোচাতে খুব বেশি বেগ পেতে হবে না হয়তো।


আরো সংবাদ