২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

দুই দিনের যুদ্ধে হেরে, ‘৪৫ মিনিট’কে দায়ী করছেন কোহলি

ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। - ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহিল বলেছেন, মাত্র ৪৫ মিনিটের বাজে ক্রিকেটের খেসারত তাদের দিতে হয়েছে। বুধবার ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে বৃষ্টি বিঘিœত ম্যাচে ১৮ রানের অপ্রত্যাশিত পরাজয়ের পর এমন মন্তব্য করেন কোহলি।

রোববারের ফাইনালে পৌঁছানোর জন্য ভারতীয় দলের প্রয়োজন ছিল মাত্র ২৪০ রান। কিন্তু ওই লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতেই বিপর্যয়ে পড়ে ভারত। ম্যাট হ্যানরি ও ট্রেন্ট বোল্টের পেস বোলিংয়ের সামনে শুরুতেই অসহায় আত্মসমর্পন করে টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। মাত্র ৫ রানেই তিন উইকেটের পতন ঘটে ভারতীয়দের। ২৪ রান তুলতেই হারায় ৪ উইকেট এবং রবিন্দ্র জাদেজার লড়াইয়ের আগে ৯২ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বসে দুই বারের চ্যাম্পিয়নরা।

শুরুতে ব্যর্থ হওয়া ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে অধিনায়ক কোহলিও ছিলেন। মাত্র এক রান করেই সাজঘরে ফিরতে হয়েছে তাকে। ব্যর্থতার ওই মিছিলে সামিল হয়েছিলেন রোহিত শর্মা ও কেএল রাহুলও। তারা সবাই বিদায় নিয়েছিলেন একটি করে রানের পুঁজি নিয়ে।

খেলা শেষে কোহলি সাংবাদিকদের বলেন, ‘এই টুর্নামেন্ট জুড়েই আমরা অসাধারণ ক্রিকেট খেলেছি। কিন্তু মাত্র ৪৫ মিনিটের বাজে ক্রিকেট আমদের দু:খজনকভাবে ছিটকে দিয়েছে। এতে আপনাদের মনও ভেঙ্গে গেছে। গ্রুপ পর্বে শীর্ষে থাকার পর একটি খারাপ স্পেলে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিতে হয়েছে।’

এ জন্য নিউজিল্যান্ডের কৃতিত্বও প্রচুর। কারণ নতুন বলে কিভাবে অসাধারণ বোলিং করতে হয় তা তারা দেখিয়ে দিয়েছে। সঠিক নিশানায় বল করে আমাদের বাধ্য করেছে থেমে যেতে।’

‘সেমি-ফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে ৮ উইকেটে ২৩৯ রানে আটকে রেখে ফাইনালের টিকিট পাওয়ার জন্য ভারত ভাল একটি প্রেক্ষাপট সৃষ্টি করেছিল বলে মনে করেন কোহলি। বৃষ্টি বিঘিœত ৫০ ওভারের ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত দ্বিতীয় দিনে গড়ায়।

কোহালি বলেন, ‘সকালে কিভাবে খেলব সেই পরিকল্পনাও আমরা করে ফেলেছিলাম। কারণ তাদেরকে আমরা যে পরিমাণ রানে আটকে ফেলেছিলাম তা যে কোন পরিবেশেই অতিক্রম যোগ্য। কিন্তু নতুন বলে প্রথম ঘন্টায় তারা যেভাবে বোলিং করেছে, তাতেই ম্যাচের ব্যবধান গড়ে দেয়।’

ওল্ড ট্রাফোর্ডে রিজার্ভ ডে’তে পরাজিত হবার পর কোহলি বলেন,‘ মঙ্গলবার দল যে সামর্থ্য দেখিয়েছে তা গর্ব করার মত। আজ (বুধবার) সকালেও বল হাতে আমরা দারুণ পেশাদারিত্ব দেখিয়েছি। এতে আমরা অনুপ্রেরণাও লাভ করি। তবে সব কৃতিত্ব কিউই বোলারদের। নতুন বলে তারা যে দক্ষতা দেখিয়েছে, তা অসাধারণ। তারা আমাদের ব্যাটসম্যানদের নাভিশ্বাস তুলে দিয়েছিল।’

ম্যাচে কিউই পেসার ম্যাট হেনরি দারুণ ফর্মে থাকা শর্মাকে সাজঘরে পাঠিয়ে দারুণ এক সূচনা করেন। এরপর ট্রেন্ট বোল্ট লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে বিদায় করেন অধিনায়ক কোহলিকে। যদিও সপ্তম উইকেট জুটিতে জাদেজা ও এমএস ধোনি ১১৬ রানে পার্টনারশীপের মাধ্যমে দলীয় বিপর্যয় অনেকটাই সামাল দিয়েছিলেন। কিন্তু টেল এন্ডারদের আরেকদফা ব্যর্থতায় সফল সমাপ্তি টানতে পারেনি টুর্নামেন্ট ফেভারিটরা।

কোহলির মতে এটি ছিল একটি খারাপ দিন। গ্রুপ পর্বে সাত ম্যাচে জয় নিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থেকে নকআউট পর্বে উঠা দলটিকেই সেমি-ফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হয়েছে। ভারতীয় অধিনায়ক বলেন, ‘আমরা দু:খিত, কিন্তু বিধ্বস্ত নই। কারণ টুর্নামেন্টে যে ধরনের খেলা আমরা খেলেছি, তাতে জানি আমাদের দলের স্থান কোথায় হওয়া উচিত ছিল। আজ আমরা যথেষ্ঠ ভাল খেলিনি। এটিই টুর্নামেন্টের স্বাভাবিক একটি চরিত্র। এই পর্যায়ে একটি খারাপ সময় আসে, তখন যেকোন দলকেই টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিতে হয়।’


আরো সংবাদ