১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

কিউইদের হারিয়ে লঙ্কানদের জয়

ম্যাচের শেষদিনে শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন ১৩৫ রান। হাতে ছিলো ১০ উইকেট। কোনো অঘটন না ঘটলে লঙ্কানদের পাত থেকে কোনো ভাবেই জয় কেড়ে নেয়ার সাধ্য ছিল না কিউইদের। রোববার গল ইন্টান্যাশনাল স্টেডিয়ামে সেটাই ঘটল। দুই সেশনেই খেলা শেষ। দিমুথ করুনরত্নের ১২২ ও লাহিরেু থিরিমান্নের ৬৪ রানের সুবাধে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে ৬ উইকেটে হারিয়ে সিরিজ জয়ের পথে এক পা বাড়িয়ে রাখল লঙ্কানরা।

কিউইদের দেয়া ২৬৮ রানের জবাবে চতুর্থ দিন শেষে বিনা উইকেটে ১৩৩ রান তুলে শ্রীলঙ্কা। শেষদিন অপেক্ষায় থাকতে হয় ১৩৫ রানের।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ২৬৭ রান করা শ্রীলঙ্কা থেকে ১৮ রানে পিছিয়ে থেকে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে তৃতীয় দিন শেষে ৭ উইকেটে ১৯৫ রান করেছিলো নিউজিল্যান্ড। তাই দিন শেষে ৩ উইকেট হাতে নিয়ে ১৭৭ রানে এগিয়েছিলো কিউইরা। উইকেটরক্ষক বিজে ওয়াটলিং ৬৩ ও উইলিয়াম সমারভিল ৫ রানে অপরাজিত ছিলেন।

শ্রীলংকার সামনে বড় টার্গেট দিতে ওয়াটলিং-এর দিকে তাকিয়েছিলো নিউজিল্যান্ড। ওয়াটলিং চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন। শ্রীলংকার ডান-হাতি পেসার লাহিরু কুমারা ৭৭ রানে থামিয়ে দেন ওয়াটলিংকে। তার ১৭৩ বলের ইনিংসে ৬টি চার ছিলো।

তবে বড় ইনিংস খেলার পথেই ছিলেন সমারভিল। তাই শেষ দুই ব্যাটসম্যানকে নিয়ে লড়াই করার চেষ্টা করেছেন তিনি। তাতে কিছুটা হলেও সফল হয়েছেন সমারভিল। ট্রেন্ট বোল্টকে নিয়ে ৩৬ ও আজাজ প্যাটেলকে নিয়ে ২৫ রান যোগ করেন সমারভিল। শেষ পর্যন্ত দ্বিতীয় ইনিংসে ২৮৫ রানের সংগ্রহ পায় নিউজিল্যান্ড। জয়ের জন্য ২৬৮ রানের টার্গেট পায় শ্রীলঙ্কা। সমারভিল অপরাজিত ৪০, বোল্ট ২৬ ও প্যাটেল ১৪ রান করেন। শ্রীলঙ্কার এম্বুলদেনিয়া ৪টি ও ডি সিলভা ৩টি উইকেট নেন।

জয়ের জন্য ২৬৮ রানের লক্ষ্যে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন শ্রীলঙ্কার দুই ওপেনার অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে ও লাহিরু থিরিমান্নে। ওপেনিং জুটিতে দুজনে তোলেন ১৬১ রান। ২৪৩ বলে ৬ চার ও এক ছয়ে ১২২ রান করেন করুনারত্নে। ১৬৩ বলে ৪ বাউন্ডারিতে ৬৪ রান আসে থিরিমান্নের ব্যাট থেকে। তারা দুজন আউট হলে কুশর পেরেরার ২৩, কুশল মেন্ডিসের ১০ এবং অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের ২৮ ও ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার অপরাজিত ১৪ রানের ওপর ভর করে ৮৬.১ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৬৮ রান তুলে ফেলে শ্রীলঙ্কা।


আরো সংবাদ