২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ধোনি অবসর নিলে ভারতীয় ক্রিকেটের ক্ষতি হবে : কপিল

ভারতের দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনি অবসর নিলে দেশের ক্রিকেটের জন্য বড় ক্ষতি হবে বলে জানালেন সাবেক অধিনায়ক কপিল দেব। ভারতীয় ক্রিকেটের উন্নতির পেছনে ধোনির অনেক অবদান রয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

২০১৯ সালে ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস বিশ্বকাপের পর থেকে মাঠে বাইরে রয়েছেন ধোনি। ঐ আসরের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেয় ভারত। মাঠের বাইরে থাকায় ধোনির অবসর নিয়ে চলছে ব্যাপক আলোচনা। কিন্তু অবসর নিয়ে ধোনি কোন মুখ খুলছেন না। এমনকি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড প্রধান সৌরভ গাঙ্গুলী, জাতীয় দলের নির্বাচক, অধিনায়ক-কোচ কেউই ধোনির ভবিষ্যত নিয়ে খোলাসা করে কিছুই বলছেন না।

তবে অনেকের ধারণা, আগামী আইপিএলে নিজের পারফরমেন্সের বিচার করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিবেন ধোনি। এমন ইঙ্গিত আগেই দিয়েছিলেন ভারতের কোচ রবি শাস্ত্রী। তিনি বলেছিলেন, ‘আগামী আইপিএলের উপর নির্ভর করছে ধোনির ভবিষ্যত।’

তবে ধোনি যখনই অবসর নিবে, তা ভারতের ক্রিকেটের জন্য ক্ষতিকর হবে বলে জানালেন ভারতের প্রথম বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক কপিল। তিনি বলেন, ‘প্রত্যেককেই একদিন অবসর নিতে হয়। ধোনি অবসর নিলে তা দেশের ক্রিকেটের জন্য বড় ক্ষতি হবে। কারণ ভারতীয় ক্রিকেটকে দীর্ঘদিন সেবা দিয়েছে ধোনি। ভারতের ক্রিকেটে তার অবদান প্রচুর। বিশ্বকাপের পর ভারতের জার্সিতে কোন ম্যাচও খেলেনি সে। জানি না কবে আবার সে খেলবে বা অবসর নিবে।’

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে ধোনিকে বাদ দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকতে হলে যে সংখ্যক ম্যাচ খেলতে হয়, তা খেলেননি ধোনি। তাই ধোনিকে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে রাখেনি বোর্ড। তবে কেন্দ্রীয় চুক্তি নিয়ে ধোনির মত অবস্থা ভারতের দুই লিটল মাস্টার সুনীল গাভাস্কার ও শচীন টেন্ডুলকারের হয়েছিলো বলে জানান কপিল, ‘কেন্দ্রীয় চুক্তিতে নেই ধোনি, এতে আমি দুঃখিত। গাভাস্কার-টেন্ডুলকারেরও এমন অবস্থা হয়েছিলো।’

২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন ভারতের অধিনায়ক ছিলেন ধোনি। কপিলও ভারতের প্রথম বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক। তার নেতৃত্বে ১৯৮৩ সালে প্রথম ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতে ভারত। সূত্র : বাসস।


আরো সংবাদ