২৩ অক্টোবর ২০১৯
পা পু য়া নি উ গি নি র রূ প ক থা

বনের অদৃশ্য ভূত

-

(গত দিনের পর)
ভূতের কবলে আপাতত পড়তে হচ্ছে না। নিশ্চিন্ত হওয়া গেল। বাবা যেন টের না পান, ছেলেটি সে ব্যাপারে বেশ সতর্ক। ঝোপজঙ্গলের ভেতর দিয়ে বাবা এগোচ্ছেন। ছেলেও তার পেছন পেছন এগোয়। এই পিছু নিতে গিয়ে তাকে খুব বেশিমাত্রায় সাবধান থাকতে হয়Ñ বাবা যেন কিছু বুঝতে না পারেন। কেউ কারো কথা জানে না। এভাবে চলতে থাকে।
বাবা তার সন্ধানী দৃষ্টি মেলে সামনের দিকে যাচ্ছেন। হঠাৎই একটা প্রাণীর দিকে চোখ গেল তার। বড়সড় একটা গাছের ওপরে ছিল সেটা। তীর-ধনুক নিয়ে বাবা উঠে পড়েন গাছে। প্রাণীটিকে লক্ষ্য করে তীর ছোড়েন তিনি। নিশানা কখনো ভুল হয় না তার। দীর্ঘকাল ধরে শিকার করে আসছেন। হাত পেকে গেছে তাই। অভিজ্ঞতা অনেক। তার মতো ঝানু শিকারি এই তল্লাটে খুব কমই আছে। দূরের গাঁয়ের লোকেরাও তার নাম জানে। তীরবিদ্ধ প্রাণীটা ধুপ করে পড়ে যায় নিচে।
ছেলে ওই গাছের নিচেই ছিল। একটু আড়ালে-আবডালে ছিল। না হলে বাবা বুঝে ফেলতে পারেন। বাবা তাকে ঘুমে রেখে এসেছেন, এখন এখানে দেখলে অবাক হবেন। বকাঝকাও করতে পারেন। এমন কিছু একটা হোক, ছেলে সেটা মনে মনে চাইছিল না। প্রাণীটা ধপাস করে মাটিতে পড়তেই ছেলে চমকে ওঠে। (চলবে)

 


আরো সংবাদ