১২ ডিসেম্বর ২০১৯

কে কী-----কেন কিভাবে পালমাছ পাল তুলে ভেসে বেড়ায়

-

আজ তোমরা জানবে পালমাছ সম্পর্কে । এ মাছ নৌকার মতো পাল তুলে পানিতে ভেসে বেড়ায়। এ কারণে মাছটির নাম পালমাছ।
লিখেছেন মুহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ

তোমরা হয়তো পালতোলা নৌকা দেখেছ। পালতোলা মাছ দেখেছ কি? কেউ কেউ হয়তো টেলিভিশনের পর্দায় দেখে থাকবে। এ মাছ নৌকার মতো পাল তুলে পানিতে ভেসে বেড়ায়। এ কারণে মাছটির নাম পালমাছ। ইংরেজি নাম সেইলফিশ।
পালমাছ এক ধরনের সামুদ্রিক মাছ। এর রয়েছে আকর্ষণীয় একটি পৃষ্ঠপাখনা। এ পাখনা মাছটির দৈর্ঘ্যরে প্রায় সমান। আর এ পাখনার উচ্চতা দেহের পুরুত্বের চেয়ে বেশি। পানিতে ভেসে বেড়ানোর সময় যখন পালমাছ এ পাখনাটিকে খাড়া করে, তখন একে পালের মতোই মনে হয়। এ কারণেই এর নাম পালমাছ বা সেইলফিশ। সাগরের উষ্ণ এলাকায় এ মাছ পাওয়া যায়।
পালমাছ গায়ের রঙ নীল ও ধূসর। দেহের দৈর্ঘ্য পাঁচ থেকে ১০ ফুট। ওজন প্রায় ১০০ কেজি। এ মাছের ঠোঁট বেশ লম্বা, যা অনেকটা তলোয়ার মাছের মতো।
তোমরা হয়তো শুনে থাকবে পালমাছ উত্তেজিত হলে মাছটির গায়ের রঙ হালকা নীল হয়ে যায়, গায়ে ডোরাদাগ দেখা যায়। সাধারণ অবস্থায় পালমাছ পৃষ্ঠপাখনা ভাঁজ করে রাখে। কিন্তু বিপদের মুখে পড়লে অথবা উত্তেজিত হলে পাখনা খাড়া করে। তখন একে এর স্বাভাবিক আকারের চেয়ে অনেক বড় দেখায়। শিকারি প্রাণী আক্রমণ করার আর সাহস পায় না। এরা পানি থেকে অনেক উঁচুতে লাফ দিতে পারে।
পালমাছ ছোট ছোট মাছ ও স্কুইড খাবার হিসেবে গ্রহণ করে।
এ মাছের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এর গতি। বলা হয়, মাছদের মধ্যে এটিই সবচেয়ে দ্রুতগতিতে চলাচল করতে পারে, ঘণ্টায় ৬৮ মাইল বেগে সাঁতার কাটতে পারে। এ মাছের মাংস বেশ শক্ত। সে কারণে এটি খাওয়া হয় কম। তবে গেমফিশ হিসেবে এর মূল্য অনেক। পালমাছ বা সেইলফিশ চার বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকে।


আরো সংবাদ