১২ ডিসেম্বর ২০১৯

বিশ্বের নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী তে জাতির কথা

-

আজ তোমরা জানবে তে সম্পর্কে। এরা ভিয়েতনামের দ্বিতীয় বৃহত্তম জনগোষ্ঠী। এরা সাধারণত কৃষিজীবী। লিখেছেন মুহাম্মদ রোকনুদ্দৌলাহ্

ভিয়েতনাম এশিয়ার দেশ। তে জনগোষ্ঠীর বসবাস এ দেশে। বর্তমান জনসংখ্যা ১৬ লাখের বেশি। এরা ভিয়েতনামের দ্বিতীয় বৃহত্তম জনগোষ্ঠী। তার মানে জনসংখ্যার ভিত্তিতে ভিয়েত-নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠীর পরেই এদের স্থান।
তে জনগোষ্ঠীর বেশির ভাগ বাস করে উত্তর ভিয়েতনামে; বিশেষ করে কাও ব্যাং, ল্যাং সন, ব্যাক ক্যান, থাই নগুয়েন ও কুয়াং নিনহ প্রদেশে। এসব প্রদেশের উপত্যকা বরাবর ও পর্বতের নিচ ঢালে এদের বসতি বেশি দেখা যায়। ব্যাক নিনহ ও ব্যাক গিয়াং প্রদেশের কিছু এলাকায়ও এদের বসতি রয়েছে। তে গ্রামগুলো গড়ে উঠেছে সাধারণত পর্বতের পাদদেশে এবং প্রায়ই এগুলোর নামকরণ করা হয়েছে পর্বত, মাঠ বা নদীর নামানুসারে।
একটি গ্রামে ১৫ থেকে ২০টি পর্যন্ত পরিবার থাকে। উর্বর সমতল ভূমিগুলো এদের অধিকারে এবং এরা সাধারণত কৃষিজীবী।
তেরা প্রধানত ধান উৎপাদন করে। তবে ভুট্টা, মিষ্টি আলু এবং অন্যান্য ফসলও ফলায়।
তে নারীরা ঘাগরা (স্কার্ট) পরে। এগুলোকে এরা সারং বলে। এ সারং হাঁটুর নিচ পর্যন্ত লম্বা এবং ডান দিক কাটা, যাতে বগল বরাবর পাঁচটি বোতাম থাকে।
তেরা কথা বলে তে ভাষায়। এ ভাষার কয়েকটি উপভাষা রয়েছে।
একসময় তেদের বেশির ভাগ সর্বপ্রাণবাদে বিশ্বাসী ছিল। বর্তমানে বৌদ্ধ ধর্ম প্রসার লাভ করেছে। বেশির ভাগ তে পালন করছে এ ধর্ম। কিছু অনুসরণ করছে তাওবাদ।
ভিয়েতনাম-চীন সীমান্তের চীনা এলাকার নুং ও ঝুয়াং জনগোষ্ঠীর সাথে তেদের রয়েছে নিবিড় সাদৃশ্য। সাংস্কৃতিক দিক দিয়ে তেরা বেশ উন্নতি করেছে। এরা নাচ-গান পছন্দ করে এবং বাদ্য বাজায়। ধান পাকা ও ধান কাটা উপলক্ষে এরা উৎসব পালন করে। এসবের মধ্যে লং তং ও তাম খাউ মাউ উৎসব দু’টির কথা বলা যেতে পারে। তথ্যসূত্র : ওয়েবসাইট

 


আরো সংবাদ