গোলাপ গ্রাম

নয়া দিগন্ত অনলাইন

গ্রামের ভেতর দিয়ে আঁকাবাঁকা সরু পথ। পথের ধার ঘেঁষে অসংখ্য গোলাপের বাগান। যত দূর চোখ যাবে শুধু লাল গোলাপের সমারোহ। সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নে তুরাগ নদীর তীরে এই গোলাপ গ্রাম সাদুল্লাহপুরের অবস্থান। লিখেছেন সুমনা শারমিন

যেদিকে চোখ যায় সারি সারি গোলাপ বাগান। বাতাসে ভেসে আসা ফুলের সৌরভ মন মাতাবে আপনার। ঢাকার আশেপাশে অল্প সময়ের জন্য কোথাও ঘুরে আসতে চাইলে সাদুল্লাপুর হতে পারে উপযুক্ত জায়গা। যাত্রা পথে যেমন নদীর মনোরম দৃশ্য উপভোগ করতে পারবেন, তেমনি গোলাপের সৌন্দর্যও দেখতে পারবেন কাছ থেকে। দুপুরের পর থেকেই চাষিরা বাগানে নেমে যান গোলাপ তুলতে। গাছের সারির এক পাশ থেকে ফুল তোলা শুরু করে শেষ পর্যন্ত মুঠোভরে ফুল তোলেন। চাষিদের ফুল তোলার দৃশ্যও বেশ উপভোগ্য।
শুধু সাদুল্লাহপুর নয়, আশপাশের শ্যামপুর, কমলাপুর, বাগ্মীবাড়ি গ্রামের গোলাপের রাজ্য সত্যিই অন্যরকম জায়গা। গোলাপের রাজ্য সাদুল্লাপুর যেতে চাইলে ঢাকার মিরপুর দিয়াবাড়ী ট্রলার ঘাট থেকে মাত্র ৩০ মিনিটের দৃষ্টিনন্দন যাত্রার পর দেখা মেলে সাদুল্লাপুর গ্রাম। ট্রলার থেকে নেমে ৫০ গজ সামনে গেলে পাবেন বাজার। এ বাজার পার হলেই রাস্তার দুই পাশে সারি সারি গোলাপ বাগান। এই গ্রামের ৯০ শতাংশ লোকের পেশা গোলাপ চাষ। এখানে মূলত মিরান্ডা প্রজাতির লাল গোলাপের চাষ হয়। পুরো গ্রামজুড়ে সারা বছরই হয় ফুলের চাষ। লাল গোলাপের পাশাপাশি রয়েছে সাদা গোলাপ, জারবেরা ও গ্ল্যাডিওলাস ফুলের বাগান।
প্রতিদিন প্রায় ৬০ থেকে ৭০ হাজার ফুল বিক্রি হয় এখান থেকেই যা ঢাকার বাজারের ফুলের চাহিদার প্রায় ৭০ শতাংশ। ৩০০ পিসের গোলাপ ফুলের আঁটি বিক্রি হয় ৩০০-৪০০ টাকায়। আপনি চাইলে ৫০-১০০ পিস নিজের জন্যও কিনে আনতে পারেন খুব সস্তায়।
কিভাবে যাবেন:
ঢাকার বিভিন্ন স্থান থেকে বাস সার্ভিস আছে, যেগুলো মিরপুর বেড়িবাঁধে আসে। সেসব বাসে উঠে বটতলা ট্রলার ঘাটে নামতে হবে। মিরপুর এক নম্বর গোলচত্বর কিংবা গাবতলী থেকে রিকশাতেই দিয়াবাড়ী বটতলা ঘাট যাওয়া যায়। ঘাট থেকে ট্রলার ছাড়ে ৩০ মিনিট পরপর। জনপ্রতি ভাড়া ২০ টাকা দিতে হবে। হেঁটেই পুরো গ্রাম দেখা যায়। চাইলে রিকশা নিয়েও ঘুরে দেখতে পারেন। খাবার সাথে নিয়ে গেলে খুব ভালো হয়, যদি না পারেন সে ক্ষেত্রে বাজারে দুটি খাবার হোটেল আছে মোটামুটি মানের। সেখানে ভাত, ভর্তা, সবজি, ছোটমাছ ইত্যাদি পাওয়া যায়। তা ছাড়া একটি মিষ্টির দোকানও রয়েছে।
দিয়াবাড়ী বটতলা ঘাট থেকে ট্রলারে সাদুল্লাহপুর ঘাটে যাওয়ার সময়টুকু মুগ্ধ হওয়ার মতো। নদীর দুই তীরের মনোরম দৃশ্য চোখে প্রশান্তি দেয়। ট্রলারে প্রায় আধা ঘণ্টা লাগে সাদুল্লাহপুর যেতে। আর ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে যেতে চাইলে মিরপুর বেড়িবাঁধ ধরে বিরুলিয়া সেতু হয়ে সোজা গেলে আকরান বাজার। বাজার থেকে বাঁয়ের পথ ধরে এগোলেই দেখা মিলবে গোলাপ রাজ্যের।

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.