ঢাকায় চলছে রবি-এয়ারটেল নেটওয়ার্ক সমন্বয়ের কাজ

সাকিবুল হাসান

রাজধানীর আদাবর, চকবাজার, ধানমন্ডি, হাজারীবাগ, কলাবাগান, লালবাগ, মোহাম্মদপুর, নিউমার্কেট, পল্টন, রমনা, শাহবাগ, শেরেবাংলা নগর ও তেজগাঁও এলাকায় আজ থেকে শুরু হচ্ছে রবি-এয়ারটেল নেটওয়ার্ক সমন্বয়ের কাজ। গত সপ্তাহে বাড্ডা, ক্যান্টনমেন্ট, কাফরুল, মিরপুর, পল্লবী ও শাহ আলী এলাকায় নেটওয়ার্ক সমন্বয়ের কাজ শুরু হয়।
রবি ও এয়ারটেল গ্রাহকদের সেরা সেবা প্রদানের লক্ষ্যে তরঙ্গ ও বিটিএসসহ টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্কের অন্যান্য অবকাঠামোগুলোও সমন্বয় করা হবে। গ্রাহকসেবার সুবিধার্থে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই রাজধানীতে এয়ারটেল নেটওয়ার্ক রবির সাথে ক্রমাগতভাবে একীভূত হবে।
আরো উন্নত নেটওয়ার্ক উপভোগ করতে এয়ারটেল গ্রাহকদের শুধু দু’টি পদক্ষেপ নিতে হবে। প্রথমে এয়ারটেল গ্রাহকদের তাদের হ্যান্ডসেটের নেটওয়ার্ক অপশনে গিয়ে এয়ারটেল/এয়ারটেলটুজি/এয়ারটেল থ্রিজি/৪৭০০২/রবি থ্রিজি/ রবিআজিয়াটা/বিজিডিরবি/একটেল লিখে সার্চ দিয়ে উল্লেখিত যেকোনো একটি অপশন সিলেক্ট করতে হবে। এরপর তাদের মোবাইল হ্যান্ডসেটের ডাটা রোমিং অপশনটি অ্যাক্টিভ করতে হবে।
ডাটা রোমিং অপশন অ্যাক্টিভ করার পর এয়ারটেল গ্রাহকেরা ফেসবুক ব্রাউজ করার জন্য তিন দিন মেয়াদি ১ জিবি ডাটা উপভোগ করতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে ফোন করতে পারেন ০১৬৭৮৬০০৭৮৬ নম্বরে।
কোনো এলাকায় নেটওয়ার্ক একীভূতকরণের সময় এর কার্যকারিতা নিশ্চিতকরণের জন্য বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ নেয়া হয়। এর মধ্যে কল এজেন্ট থেকে গ্রাহকদের কল দেয়া, আরো শক্তিশালী নেটওয়ার্ক উপভোগ করতে কী পদক্ষেপ নিতে হবে তা জানিয়ে এসএমএস পাঠানো এবং প্রি-কল নোটিফিকেশন অন্যতম। গ্রাহকদের সাথে যোগাযোগ করা ছাড়াও ওই এলাকার রিটেইলারদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়, যেন তারা গ্রাহকদের সব প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেন।
রবি ও এয়ারটেল গ্রাহকেরা ইতোমধ্যে একীভূতকরণের সুবিধা উপভোগ করছেন। একীভূতকরণের ফলে এয়ারটেল গ্রাহকেরা এখন দেশের ৯৯ শতাংশ এলাকায় বিস্তৃত নেটওয়ার্কের সুবিধা উপভোগ করছেন। পাশাপাশি অননেট কলরেট উপভোগ করতে পারছেন রবি ও এয়ারটেলের বিপুলসংখ্যক গ্রাহকেরা। ফলে একীভূত হওয়ার আগে একই সেবা গ্রহণের জন্য গ্রাহককে যা খরচ করতে হতো, এখন এর চেয়ে অনেক কম খরচ করতে হচ্ছে।
শেষ হতে চলেছে রবি ও এয়ারটেল নেটওয়ার্ক সমন্বয়ের কাজ। আর সেই সাথে গত নভেম্বরে একীভূতকরণ কার্যকরের সময় দেয়া দেশের এক নম্বর নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের দ্বারপ্রান্তে রবি।
ভারতী এন্টারপ্রাইজের একটি আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড ‘এয়ারটেল’ গ্রাহক সংখ্যার দিক থেকে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মোবাইল ফোন অপারেটর। ২০১৬ সালের ২৮ জানুয়ারি মালয়েশিয়ার আজিয়াটা গ্রুপ ও ভারতের ভারতী এন্টারপ্রাইজ বাংলাদেশে পরিচালিত তাদের কার্যক্রম একীভূতকরণের বিষয়ে একমত হয়। এরপর উচ্চ আদালতের সম্মতিক্রমে একীভূত কোম্পানি হিসেবে ১৬ নভেম্বর ২০১৬ থেকে বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করে রবি। রবি-এয়ারটেল একীভূতকরণের অংশ হিসেবে এয়ারটেলকে তার একটি ব্র্যান্ড হিসেবে পরিচালিত করার অনুমোদন পেয়েছে রবি, ০১৬ নম্বর সিরিজ ব্যবহারকারী গ্রাহকেরা এয়ারটেল ব্র্যান্ডের অন্তর্ভুক্ত।
রবি আজিয়াটা লিমিটেড মালয়েশিয়ার আজিয়াটা গ্রুপ বারহাদ, ভারতের ভারতী এয়ারটেল লিমিটেড ও জাপানের এনটিটি ডকোমো ইনকরপোরেশনের একটি যৌথ উদ্যোগ। ভারতীর বাংলাদেশে পরিচালিত কোম্পানি এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেডের সাথে একীভূত হয়ে ২০১৬ সালের নভেম্বর থেকে একীভূত কোম্পানি হিসেবে যাত্রা শুরু করেছে রবি আজিয়াটা লিমিটেড, যার মধ্যে আজিয়াটার বেশির ভাগ ৬৮ দশমিক ৭ শতাংশ, ভারতী এয়ারটেলের ২৫ শতাংশ ও এনটিটি ডকোমোর ৬ দশমিক ৩ শতাংশ মালিকানা রয়েছে। তিন কোটি ৬২ লাখ সক্রিয় গ্রাহক নিয়ে একীভূত কোম্পানিটি এখন বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল ফোন অপারেটর। ১২ হাজারের বেশি অনএয়ার সাইটের মধ্যে সাত হাজার ৯০০টি ৩.৫জি নেটওয়ার্ক নিয়ে দেশের প্রায় ৯৯ শতাংশ জনসংখ্যা রবি নেটওয়ার্কের অন্তর্ভুক্ত। দেশের প্রথম অপারেটর হিসেবে রবি জিপিআরএস ও ৩.৫জি সেবা চালু করেছে। অপারেটরটি ডিজিটাল সেবা চালুর দিক থেকে অনেক েেত্র পথিকৃতের ভূমিকা পালন এবং গ্রামে ও উপশহরে সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর জন্য মোবাইল আর্থিক সেবা চালু করতে ব্যাপক বিনিয়োগ করেছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.