মালয়েশিয়ায় অভিযানে বাংলাদেশীসহ আটক ৫৮০

নিজস্ব প্রতিবেদক

মালয়েশিয়ায় অবৈধভাবে অবস্থানকারী বিদেশীদের বিরুদ্ধে আবারো যৌথ অভিযান শুরু করেছে দেশটির ইমিগ্রেশন, কাস্টম ও পুলিশ।

গতকাল শনিবার কুয়ালালামপুরের পেটালিং স্ট্রিট, লেবুহ পুডু, জালান টুন এইচএস লিএবং জালান সিলান এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৫৮০ জন অবৈধ বিদেশী নাগরিককে আটক করা হয়। পরীক্ষা নীরিক্ষার পর মিয়ানমার, বাংলাদেশ, নেপাল ও ভিয়েতনামের কাগজপত্রবিহীন নারী পুরুষসহ ১৮০ জনকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। এর মধ্যে ৫০-৬০ জন বাংলাদেশী থাকতে পারে। এসময় পুরো এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে।

কোতায়ারা মার্কেটের ব্যবসায়ীরা জানান, অভিযানের সময় ইমিগ্রেশন কাস্টমস ও পুলিশ সদস্যরা দোকান ও দোকানের বাইরে থাকা সন্দেহজনক বিদেশীদের আটক করে পাসপোর্ট দেখতে চান। একই সাথে এখানকার ব্যবসায়ীরা আইন নেমে ব্যবসা করছেন কিনা তাও দোকানের মালিক ও কর্মচারিদের কাছে জানতে চান।

‘লিটল ঢাকা’ হিসাবে পরিচিতি পাওয়া কোতায়ারা মার্কেট এলাকায় শনিবার যৌথ অভিযানের পর আজ রোববার সারাদিন বিরাজ করে ধরপাকড় আতংক।

এর আগে ঢাকায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থাণ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি সাংবাদিকদের বলেছিলেন, মালয়েশিয়ায় আর কোনো বাংলাদেশী পুলিশী অভিযানে ধরা পড়বে না। তার এমন বক্তব্যর পরও থেমে নেই ধরপাকড় অভিযান।

অভিযান সম্পর্কে কোতারায়া বাংলাদেশ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি রাশেদ বাদল সাংবাদিকদের জানান, ‘আমরা আইন মেনে ব্যবসা করছি কি না তা তারা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেন। আমাদের সতর্ক করেছেন যেন আইন মেনে ব্যবসা করি এবং অবৈধ শ্রমিক নিয়োগ না দিই। ওই সময় বাংলা মার্কেটে কেনাকাটা করতে আসা ৫০ থেকে ৬০ জন অবৈধ বাংলাদেশিকে আটক করে তারা।

উল্লেখ্য, গত মাস থেকে মালয়েশিয়ায় অবৈধ বিদেশী শ্রমিক অভিযান শুরু হয়। এসময়ের মধ্যে দেড় হাজার বাংলাদেশী ইমিগ্রেশনের অভিযানে ধরা পড়ে বলে দেশটির গনমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে। এরপর কিছুদিন অভিযান থেমে গেলেও আবারো বড় ধরনের অভিযান চালায় দেশটির ইমিগ্রেশন, কাস্টম ও পুলিশ।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.