অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্র দফতর (ফাইল ফটো)
অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্র দফতর (ফাইল ফটো)

বাংলাদেশ সফরে অস্ট্রেলিয়ার সতর্কতা জারি

কূটনৈতিক প্রতিবেদক

সন্ত্রাসী আক্রমণের উচ্চ মাত্রায় ঝুঁকি ও অনিশ্চিত নিরাপত্তা পরিস্থিতির কারণে বাংলাদেশ সফরে সতর্কতা জারি করেছে অস্ট্রেলিয়া।

এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে পশ্চিমা স্বার্থকে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করার চরমপন্থীদের পরিকল্পনার নির্ভরযোগ্য তথ্য রয়েছে। এ ছাড়া দেশটিতে জুলাই মাসে মশাবাহিত চিকুনগুনিয়া ভাইরাসের বিস্তার ঘটেছে।

নিজ দেশের নাগরিকদের জন্য আজ সোমবার অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্র দফতরের সতর্ক বার্তায় নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে বাংলাদেশ সফরের প্রয়োজনীয়তা পুনর্বিবেচনা করার আহ্বান জানিয়ে বলা হয়, বাংলাদেশে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলে অতিরিক্ত নিরাপত্তা পদক্ষেপ নেয়া, পররাষ্ট্র দফতরের ভ্রমণ বিষয়ক স্মার্ট ট্রাভেলারে নিবন্ধন করা এবং নিরাপত্তা ঝুঁকি সম্পর্কে সংবাদ মাধ্যম ও অন্যান্য সূত্রের ওপর নজর রাখার আহ্বান জানানো হয়েছে।

বার্তায় সন্ত্রাসীদের লক্ষ্যবস্তু হিসেবে পরিচিত স্থানগুলোতে যাওয়ার বিষয়টি সতর্কতার সাথে বিবেচনা করতে বলা হয়েছে।
এসব স্থানের মধ্যে রয়েছে আদালত, বিদেশী সরকারের স্থাপনা, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, সামরিক ও পুলিশের স্থাপনা, দূতাবাস, হোটেল, ক্লাব, রেস্তোরাঁ, বার, স্কুল, শপিং সেন্টার, ব্যাংক, উপাসনালয়, রাজনৈতিক র‌্যালি, সিনেমা হল, অবকাশ যাপন কেন্দ্র, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, জনপরিবহন, বাস টার্মিনাল, রেল স্টেশন, ঐতিহাসিক স্থানগুলোসহ সরকারি বিভিন্ন কার্যালয়।

এতে গত ২৪ মার্চ ঢাকায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে একটি চেকপয়েন্টে আত্মঘাতী বোমা হামলার কথা বলা হয়েছে।

এছাড়া তুলে ধরা হয়েছে ২০১৬ সালের ১ ও ২ জুলাই গুলশানে হোলে আর্টিজান রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসী হামলার প্রসঙ্গ। এ হামলায় দুই পুলিশ সদস্য ছাড়াও ২০ জনকে হত্যা করা হয়েছে, যাদের বেশির ভাগই বিদেশী। এর দায় স্বীকার করে ইসলামিক স্টেট অব ইরাক অ্যান্ড দ্য লিভ্যান্ট (আইএসআইএল)। ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরের শেষের দিক থেকে বাংলাদেশে ভয়াবহ কিছু সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। এর অনেকগুলোর দায় স্বীকার করেছে আইএসআইএল এবং আল-কায়েদা ইন দ্য ইন্ডিয়ান সাব-কন্টিনেন্ট (একিউআইএস)। এ অবস্থায় স্থানীয় নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ উচ্চ সতর্কতায় রয়েছে। একই সাথে সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনা করছিল- এমন সন্দেহজনকদের গ্রেফতার অব্যাহত রাখা হয়েছে। তবে এখনও সন্ত্রাসী হামলার ঝুঁকি বিদ্যমান।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.