ব্রেস্ট ক্যান্সার : যাদের ঝুঁকি বেশি
ব্রেস্ট ক্যান্সার : যাদের ঝুঁকি বেশি

ব্রেস্ট ক্যান্সার : যাদের ঝুঁকি বেশি

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১। ৫০ বছরের বেশি বয়সের মহিলাদের মধ্যে ব্রেস্ট ক্যান্সার বেশি দেখা যায়।

২। যে মহিলার জরায়ুতে ক্যান্সার হয়েছে অথবা তার মা বা বোনের ব্রেস্ট ক্যান্সার থাকে তবে তার ব্রেস্ট ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

৩। যাদের অল্প বয়সে (১২ বছর পূর্বে) ঋতুস্রাব শুরু হয় অথবা দেরিতে (৫০ বছরের পরে) রজঃনিবৃত্তি বা মাসিক বন্ধ হয়, তাদের ব্রেস্ট ক্যান্সারের সম্ভাবনা রয়েছে।

৪। যাদের প্রথম সন্তান বেশি বয়সে হয় অথবা যাদের সন্তান হয়নি এমন মহিলাদের ব্রেস্ট ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

৫। মাসিক বন্ধ হওয়ার পর যেসব মহিলা হরমোনজাতীয় ওষুধ ব্যবহার করেন তাদেরও ব্রেস্ট ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৬। গর্ভপাত ব্রেস্ট ক্যান্সারের একটি কারণ হিসেবে চিহ্নিত।

৭। খাদ্যাভ্যাস ব্রেস্ট ক্যান্সারের আরো একটি কারণ উচ্চ চর্বিযুক্ত খাদ্য কিংবা পোড়ান খাবার ব্রেস্ট ক্যান্সারের জন্য দায়ী।

৮। অধিক ওজন কিংবা মোটা মহিলাদের মধ্যে ব্রেস্ট ক্যান্সারের প্রবণতা বেশি।

৯। একটানা অনেক দিন জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি সেবন ব্রেস্ট ক্যান্সারের কারণ হতে পারে।

১০। শিশুকে বুকের দুধ পান না করানো হলে ব্রেস্ট ক্যান্সারের সম্ভাবনা থাকে।

১১। মানসিক চাপ

১২। যেসব মহিলা ধূমপান, জর্দা, সাদাপাতা, ইত্যাদি তামাকজাতীয় দ্রব্য সেবনে অভ্যস্ত তাদের ব্রেস্ট ক্যান্সারের সম্ভাবনা রয়েছে।

১৩। মদ্যজাতীয় পানীয় পানে ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি থাকে।

১৪। অবাধ যৌনাচারের সাথে ব্রেস্ট ক্যান্সারের সম্পর্ক রয়েছে।

১৫। যারা যক্ষ্মা বা শরীরের অন্য কোনো অঙ্গের ক্যান্সারের রেডিয়েশন থেরাপি ব্যবহার করলে তাদের ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি থাকে।

বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক ক্যান্সার সোসাইটি ফিচার।ফোন: ০১৫৫৬৬৬৩১৯৬৫

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.