উচ্চ আদালতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা সরকারের জন্য বুমেরাং হবে : বাম মোর্চা

নিজস্ব প্রতিবেদক

গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের সভায় গৃহীত প্রস্তাবে আপিল বিভাগ কর্তৃক সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিল সংক্রান্ত রায়কে স্বাধীন বিচার ব্যবস্থার ক্ষেত্রে একটি ‘মাইলফলক’ হিসেবে অভিহিত করেন নেতৃবন্দ।
তারা বলেন, এ রায়ের মধ্য দিয়ে স্বাধীন বিচার ব্যবস্থার পক্ষে দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক আকাংখার প্রতিফলন ঘটেছে। যুগান্তকারী এ রায়ের মধ্যে দিয়ে নির্বাহী বিভাগ ও জনসম্মতিহীন সংসদের অনভিপ্রেত প্রভাব ও অগণতান্ত্রিক কর্তৃত্বের বাইরে বিচার বিভাগের স্বাধীন ও কার্যকরি ভূমিকার ক্ষেত্র প্রসারিত হলো।

সেগুনবাগিচায় বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে আরো বলা হয়, এ রায়ের মধ্য দিয়ে সরকার ও সংসদের নৈতিক পরাজয় ঘটলেও এ রায় একদিকে বিচার ব্যবস্থার প্রতি মানুষের আস্থা বাড়াবে। আর অন্যদিকে রাষ্ট্রের দুর্বল সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানসমূহের স্বাধীন বিকাশে শক্তি যোগাবে।
সভার প্রস্তাবে এ রায়কে কেন্দ্র করে সাবেক প্রধান বিচারপতি আইন কমিশনের চেয়ারম্যান এবিএম খায়রুল হকের বক্তব্যকে স্ব-বিরোধী, এখতিয়ার বহির্ভূত ও আদালত অবমাননার সামিল আখ্যায়িত করা হয়েছে এবং লাভজনক পদে থেকে তার প্রদত্ত বক্তব্য সাধারণ শিষ্টাচারকেও অতিক্রম করে গেছে বলে মন্তব্য করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, খায়রুল হক সরকারি দলের বিক্ষুব্ধ নেতাদের বক্তব্যেরই প্রতিধ্বনি করেছেন। এজন্য আইন কমিশনের চেয়ারম্যান থেকে অবিলম্বে তার পদত্যাগ করা প্রয়োজন।

প্রস্তাবে রায়ের ব্যাপারে সরকারি দলের নেতাদের ‘বেসামাল’ আখ্যায়িত করা হয় এবং বলা হয়, বিচার বিভাগ তথা উচ্চ আদালতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা সরকার ও সরকারি দলের জন্য বুমেরাং হবে।

প্রস্তাবে বলা হয়, উচ্চ আদালতকে অনুগত প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিবেচনা না করে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান হিসেবে কিভাবে নির্বাহী বিভাগ ও আইন প্রণয়ন বিভাগের সাথে সহযোগিতার সম্পর্ক রেখে বিকশিত হতে পারে সে ব্যাপারেই সবার সংযোগ নিবদ্ধ করা প্রয়োজন।

বাম মোর্চার সমন্বয়ক বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই সভায় উপস্থিত ছিলেন মোর্চার কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যাপক আবদুস সাত্তার, মোশরেফা মিশু, আবুল হাসান রুবেল, হামিদুল হক, ফখরুদ্দীন কবীর আতিক, আকবর খান প্রমুখ।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.