ঘিওর সরকারি কলেজের সামনের রাস্তার বর্তমান অবস্থা   :নয়া দিগন্ত
ঘিওর সরকারি কলেজের সামনের রাস্তার বর্তমান অবস্থা :নয়া দিগন্ত

ঘিওর সদরের প্রধান সড়ক চলাচলের অযোগ্য

আব্দুর রাজ্জাক ঘিওর (মানিকগঞ্জ)

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলা সদরের বেশির ভাগ রাস্তাই চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ঘিওর সরকারি কলেজ, মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, তিনটি উচ্চবিদ্যালয়, দু’টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে দিয়ে চলে যাওয়া রাস্তার বিভিন্ন স্থানে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়ে এক অবর্ণনীয় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। মাত্র পাঁচ মিনিটের বৃষ্টিতেই এ সড়কে হাঁটু পানি জমে যায়। বাসস্ট্যান্ডের সাথে রাস্তাটি দীর্ঘদিন যাবৎ সংস্কার না করায় এ রাস্তা দিয়ে চলাচলরত হাজার হাজার লোক ও বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অথচ স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এক বিন্দুমাত্র নজর দিচ্ছে না বলে অভিযোগ রয়েছে। 

জানা গেছে, সিংজুরী ও পয়লা ইউনিয়নের হাজার হাজার লোক বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন রাস্তা দিয়ে ঘিওর বাজারে প্রবেশ করে। ঘিওর সরকারি কলেজ, ঘিওর ডিএন পাইলট উচ্চবিদ্যালয়, ঘিওর পাইলট বালিকা উচ্চবিদ্যালয়, মসজিদ, ঈদগাহ, পোস্ট অফিস, ক্রীড়া সংস্থা, ৪৭ নম্বর ঘিওর আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাতায়াতের ক্ষেত্রে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অপর দিকে যাত্রী পরিবহন ও পণ্যবাহী যানবাহন চলাচলেও মারাত্মক অসুবিধা হচ্ছে। এতে স্থানীয়দের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় কয়েকজন অভিযোগ করে বলেন, ঘিওর সদরসহ বিভিন্ন এলাকায় একই স্থানে একাধিকবার উন্নয়ন ও সংস্কারকাজ করা হলেও এ রাস্তার দিকে কারো কোনো নজর নেই। তা ছাড়া শুধু ঘিওর বাজার ছাড়াও স্বাস্থ্যকেন্দ্রে আসতে হলে এ সড়কটি ব্যবহার করতে হয়। ফলে উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে আসা লোকজনেরও দুর্ভোগের শেষ নেই। 

ঘিওর ডিএন পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান শিকদার জানান, বিদ্যালয়ের আসার এই সড়কটির চার-পাঁচটি স্থান কর্দমাক্ত ও জলাবদ্ধতা থাকায় শিক্ষার্থীরাসহ এলাকার লোকজনের যাতায়াতে খুবই অসুবিধা হচ্ছে। 

উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী সাজ্জাকুর রহমান জানান, তিনি রাস্তাটি পরিদর্শন করেছেন। জরুরি ভিত্তিতে রাস্তাটি মেরামত করাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীমা খন্দকার জানান, তিনিও সরেজমিন রাস্তাটি পরিদর্শন করেছেন। রাস্তটি মেরামতের জন্যে ইতোমধ্যে ৩০ লাখ টাকার একটি প্রকল্প তৈরি করে পাঠানো হয়েছে। বাজেট এলেই দ্রুত কাজ শুরু হবে। 

এলাকার রাজনৈতিক নেতারা ও সুশীলসমাজের প্রতিনিধিরা রাস্তাটি মেরামতের জন্য প্রশাসনের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.