রামেক হাসপাতালের নার্সকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা ও তার বাবা আটক

রাজশাহী ব্যুরো

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের এক সিনিয়র স্টাফ নার্সকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতাসহ তার বাবাকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওই ছাত্রলীগ নেতাসহ তার বাবাকে আটক করা হয়। 

এর আগে এ ঘটনার প্রতিবাদে সকাল ১০টা থেকে কর্মবিরতি শুরু করেছিলেন হাসপাতালের নার্সরা। পরে অভিযুক্তদের আটক করা হলে দুপুরে কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে নেন নার্সরা। তবে দুই ঘণ্টার কর্মবিরতিতে রোগীদের বেশ ভোগান্তিতে পড়তে হয়। 

আটককৃতরা হলেন নগরীর মতিহার থানার হরিয়ান ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক ছাত্রলীগ নেতা তারিকুল ইসলাম হিমেল এবং তার বাবা জাহাঙ্গীর আলম।  এ দিকে নগরীর রাজপাড়া থানার ডিউটি অফিসার এএসআই পারভিন নয়া দিগন্তকে জানান, রামেক হাসপাতালের একজন সিনিয়র স্টাফ নার্সকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। হাসপাতালের পক্ষ থেকে মামলাটি করা হয়। মামলায় আসামি করা হয়েছে তারিকুল ইসলাম হিমেল এবং তার বাবা জাহাঙ্গীর আলমকে। 

রামেক হাসপাতাল সূত্র জানায়, শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ছাত্রলীগ নেতা হিমেলকে সাথে নিয়ে তার বাবা জাহাঙ্গীর আলম হাসপাতালের ৩৬ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন তার মেয়ে ফারজানাকে দেখতে যান। এ সময় হিমেল দায়িত্বরত সিনিয়র স্টাফ নার্সদের কাছে বোনের চিকিৎসা সম্পর্কে খোঁজখবর নিতে যান। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির জের ধরে হিমেল ফেরদৌসি খাতুন নামে এক সিনিয়র স্টাফ নার্সের ওপর চড়াও হন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই নার্স হিমেলের গালে চড় দেন। এ সময় হিমেল আরো উত্তেজিত হয়ে ফেরদৌসি খাতুনকে ধাক্কা দেন। এরপর হিমেলের বাবা ফেরদৌসি খাতুনকে চড় মারেন। এ ঘটনার পর হাসপাতালের সব নার্স কাজ ফেলে সকাল ১০টা থেকে ধর্মঘট শুরু করেন। পরে হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে পুলিশ গিয়ে ছাত্রলীগ নেতা হিমেল এবং তার বাবা জাহাঙ্গীর আলমকে আটক করে। পরে দুপুরে কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে নিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। 

হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোতাহার হোসেন সাংবাদিকদের জানান, তার সাথে নার্সরা বেলা ১১ টার দিকে দেখা করে সিনিয়র স্টাফ নার্স ফেরদৌসি খাতুনকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবি করেন। এ সময় প্রশাসনিক কর্মকর্তা সিনিয়র স্টাফ নার্সদের কথা শুনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন। পরে দুপুরে ছাত্রলীগ নেতা ও তার বাবাকে আটকের পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.