যানবাহন চলাচলে বিধিনিষেধ

জাতীয় শোক দিবসে রাজধানী জুড়ে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা : ডিএমপি কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক

জাতীয় শোক দিবসে ধানমন্ডিসহ রাজধানী জুড়ে কয়েক স্তরে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ। বিশেষ করে ধানমন্ডির ৩২ নম্বর ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার, মন্ত্রী, সংসদ সদস্যসহ সামরিক-বেসামরিক ও কূটনীতিকদের নিরাপত্তায় নির্ধারিত পোশাকের পাশাপাশি পুলিশ ও র‌্যাবের সদস্যরা সাদা পোশাকে সার্বক্ষণিক প্রস্তুত থাকবে। থাকবে ডগস্কোয়াড, বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিট, সোয়াটের সদস্যরা।

আজ রোববার বেলা ১১টায় রাজধানীর ধানমন্ডি ৩২-এ জাতীয় শোক দিবসেরর নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

একই সাথে এ এলাকায় প্রবেশ ও বের হওয়ার জন্য ট্রাফিক ব্যবস্থারও পরিবর্তন আনা হয়েছে। ধানমন্ডি ৩২-এ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানাতে আসা সর্বস্তরের মানুষকে শৃঙ্খলার সাথে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সহযোগিতার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

কমিশনার বলেন, জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ধানমন্ডি ৩২-এ সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামে। নিরাপত্তার স্বার্থে এই শ্রদ্ধাজ্ঞাপন অনুষ্ঠান দুই ভাবে ভাগ করা হয়েছে। প্রথম ভাবে সকাল সাড়ে ৬টায় শ্রদ্ধা জানাতে আসবেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। এরপর পর্যায়ক্রমে স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার, মন্ত্রী, সংসদ সদস্যসহ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা ও কূটনীতিকররা আসবেন।

দ্বিতীয় পর্যায়ে সর্বস্তরের মানুষের জন্য বেদী উন্মুক্ত করে দেয়া হবে।

কমিশনার বলেন, পুরো ধানমন্ডি ৩২ এলাকা নিরাপত্তার স্বার্থে সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। চেকপোস্ট ও আর্চওয়ে পেরিয়ে সবাইকে যেতে হবে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে। নিরাপত্তার স্বার্থে ট্রলি ব্যাগ, হাতব্যাগ, ভ্যানিটি ব্যাগ, দিয়াশলাই, আগ্নেয়াস্ত্র, চাকু, ছুরি নিষিদ্ধ থাকবে। কেউ এসব নিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন না।

কমিশনার বলেন, শোক দিবসে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনে আশপাশ এলাকার বাসাবাড়ি, মেস, ছাত্রাবাস, হোটেল, রেস্টুরেন্ট ও দোকানে তল্লাশি চালানো হতে পারে।

শোক দিবসে নিরাপত্তাজনিত কোনো ঝুঁকি রয়েছে কি না জানতে চাইলে কমিশনার বলেন, সুনির্দিষ্ট কোনো ঝুঁকি নেই। পরিস্থিতি বুঝে, প্রয়োজন ও বাস্তবতার নিরীখে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এর আগে কমিশনার পুরো এলাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শন করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম, মিজানুর রহমান, যুগ্মকমিশনার কৃঞ্চপদ রায়, মীর রেজাউল আলম।

যানবাহন চলাচলে বিধিনিষেধ
ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে গমনাগমনের পথ সম্পর্কে কমিশনার বলেন, ভিভিআইপি, ভিআইপি এবং ঊধ্বর্তন সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তারা মানিক মিয়া এভিনিউ-মিরপুর রোড-ধানমন্ডি ২৭ নম্বর ক্রসিং-মেট্রো শপিং মল ডানে মোড়-ধানমন্ডি ৩২ নম্বর পশ্চিম প্রান্ত দিয়ে প্রবেশ করবে এবং একই পথে বের হবেন।

অন্যদিকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, দল, সংগঠন এবং সর্বসাধারণ ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের পূর্ব প্রান্ত দিয়ে প্রবেশ করে পশ্চিম প্রান্ত দিয়ে বেরিয়ে যাবেন। এছাড়া সোনারগাঁও ক্রসিং থেকে রাসেল স্কয়ার, সিটি কলেজ থেকে রাসেল স্কয়ার ও ধানমন্ডি ২৭ নম্বর থেকে রাসেল স্কয়ার পর্যন্ত যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। রাসেল স্কয়ার থেকে সোবহানবাগ মসজিদ পর্যন্ত সব ধরনের পার্কিং নিষিদ্ধ থাকবে। সর্বসাধারণের জন্য ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে গমনাগমন একমুখী হবে। পূর্ব দিক দিয়ে প্রবেশ করবেন এবং পশ্চিম দিক দিয়ে প্রস্থান করবেন। রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীসহ অন্যান্য ভিআইপি ধানমন্ডি ৩২ নম্বর ত্যাগ করার পর পর্যায়ক্রমে ব্যারিকেড ব্যবস্থা শিথিল করা হবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.