গুগলে বাংলায় কথা থেকে লেখা

 আমাদের প্রতিদিনের কার্যক্রমকে প্রযুক্তি প্রতিনিয়ত সহজ করে দিচ্ছে। আপনার হাতে খুব একটা সময় নেই। অথচ কিছু একটা টাইপ করে গুগলে সার্চ করতে চান। এমন মুহূর্তে গুগলের স্পিচ-টু-টেক্সটের সুবিধা নিতে পারেন। যদিও এত দিন ধরে এই সুবিধায় বাংলা ভাষা যুক্ত ছিল না। গুগল গত ১৪ আগস্ট থেকে নতুন ৩০টি ভাষা যোগ করেছে স্পিচ-টু-টেক্সটে। এর মধ্যে রয়েছে বাংলা ভাষাও। তাই এখন থেকে গুগলের এ সুবিধাটি ব্যবহার করে বাংলায় উচ্চারণ করে করে টাইপ করতে পারবেন। এর পাশাপাশি উচ্চারণ করেও গুগল সার্চ ইঞ্জিনে কোনো কিছু খোঁজা যাবে। বিস্তারিত নিয়ে লিখেছেন সুমনা শারমিন
টাইপের ঝামেলা থেকে মুক্তি দিতে গুগলের ভয়েস সার্চ ফিচারটি বেশ জনপ্রিয়। এতদিন ইংরেজিসহ বিভিন্ন ভাষায় ব্যবহার করা যেত ফিচারটি। তবে ছিল না বাংলা ভাষা ব্যবহারের সুবিধা। সম্প্রতি গুগল ভয়েস সার্চে যুক্ত হয়েছে বাংলা ভাষা। এক ব্লগপোস্টে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে গুগল। ব্লগ পোস্টটিতে বলা হয়, এসব ভাষা যুক্ত করতে স্থানীয় ভাষাভাষীদের কথার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। আর পুরো প্রক্রিয়াটি মানে শব্দ শোনে তা টাইপ বা খোঁজার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয় মেশিন লার্নিং পদ্ধতিতে। গুগল তাদের মেশিন লার্নিং পদ্ধতিকে আরো উন্নত করেছে। বাংলার পাশাপাশি নতুন যোগ করা ভাষার মধ্যে উর্দু, নেপালি, তেলেগু, মারাঠি, তামিলসহ বিভিন্ন প্রাচীন ভাষা রয়েছে। নতুন ৩০টি ভাষা যুক্ত হওয়ায় গুগলের ভয়েস সার্চ সুবিধাটি বিশ্বের ১১৯টি ভাষাভাষীর মানুষ ব্যবহার করতে পারবেন। সুবিধাটি ব্যবহার করতে চাইলে কি-বোর্ডে ভয়েস টাইপিং চালু করতে প্লে-স্টোর থেকে ‘জিবোর্ড’ অ্যাপটি প্রথমে নামিয়ে নিতে হবে। এরপর অ্যান্ড্রয়েড সেটিংসে ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যান্ড ইনপুট অপশনে গিয়ে কারেন্ট কি-বোর্ড হিসেবে জিবোর্ড নির্বাচন করতে হবে। এবার জিবোর্ডে গিয়ে ভাষা হিসেবে বাংলা নির্বাচন করে পুনরায় ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যান্ড ইনপুট অপশনে ফিরে এসে গুগল ভয়েস টাইপিংয়ে প্রবেশ করুন। তারপর সেখানে ইংরেজি অপশন বন্ধ করে দিয়ে বাংলা ভাষা চালু করে নিন। সেটিংসের কাজ শেষে মেসেজ বা ফেসবুকের টাইপ মুডে গিয়ে স্পেচবার চেপে ধরে গুগল ভয়েস টাইপিং অপশন নিন। এখন আপনি বাংলায় কথা বললে সেটা পর্দায় বাংলায় টাইপ হতে থাকবে। জিবোর্ড নামানোর ঠিকানা: https://goo.gl/ZmU5F
জিবোর্ডে একইসাথে একাধিক ভাষায় লেখা যায়। এর সবচেয়ে বড় ফিচার হলো এর গ্লিড টাইপিং বা আঙুলের এক টানে একটি শব্দ লেখা। এ ছাড়া রয়েছে ভয়েস টাইপিং, বিল্ট ইন ইমোজি, জিআইএফ সার্চ। আরেকটি অসাধারণ ফিচার হলো এর ‘জি’ বাটন। এই বাটনে ক্লিক করেই তাৎক্ষণিকভাবে গুগলে বিভিন্ন বিষয় যেমন আশপাশের দোকান বা রেস্টুরেন্ট, ভিডিও, ছবি, সংবাদ, খেলাধুলার স্কোর ইত্যাদি সার্চ করা যাবে। ফলে কাক্সিক্ষত বিষয় খুঁজতে এখন থেকে আর আলাদা অ্যাপে যাওয়া লাগবে না। আপনি যখন কোনো কিছু সার্চ থেকে পেয়ে যাবেন সেটি তাৎক্ষণিকভাবে কনভারসেশনে যুক্ত করতে পারবেন।
এখনো নতুন ভাষাগুলো সব ব্যবহারকারীর কাছে পৌঁছেনি। গুগল জানিয়েছে, ধীরে ধীরে সব ব্যবহারকারীর কাছে পৌঁছে যাবে ভাষাগুলো। অচিরেই এই নতুন ভাষাগুলো ব্যবহার করে গুগলের অন্য অ্যাপগুলোতে ভয়েস কমান্ডের সুবিধা যুক্ত হবে। ফলে গুগলের ট্রান্সলেশনে বাংলা ভাষায় ভয়েস কমান্ডের সাহায্যে কোনো শব্দের অর্থ খুঁজে বের করা যাবে। উল্লেখ্য, গুগল ভয়েস সার্চের সাহায্যে কি-বোর্ড ছাড়াই ভয়েস কমান্ডের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় তথ্য খুঁজে বের করা যাবে। এ জন্য গুগল ক্রোমে সার্চের বক্সের মাইক্রোফোন আইকনে ক্লিক করে ভয়েস কমান্ড অপশনটি সক্রিয় করতে হবে। এরপর শুধু আপনি যা খুঁজে পেতে চান তা বলতে হবে।
মুখে কথা বললেই হাতের কোনো স্পর্শ ছাড়াই কথা লেখা হয়ে যাবে বিষয়টি আশ্চর্যজনক হলেও বিশ্বব্যাপী এমন প্রযুক্তির ব্যবহার বেশ পুরনো। প্রায় এক দশক আগে থেকেই এমন একাধিক প্রযুক্তি ব্যবহার হচ্ছে দুনিয়াজুড়ে। তবে আগে ছিল ইংরেজি মাধ্যমে। আর এবার এমন প্রযুক্তি তৈরি হয়েছে বাংলায়।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.