ওফাতবার্ষিকীতে বক্তারা

সুফিসাধক আহমদুল হক সমাজ নির্মাণের পথিকৃৎ ছিলেন

চট্টগ্রাম ব্যুরো

অসাম্প্রদায়িক ও আধ্যাত্মিক সংগঠন আল্লামা রুমী সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা, সুফি সাধক ও বাংলার রুমী সৈয়দ আহমদুল হকের ষষ্ঠ ওফাতবার্ষিকী উপলে আল্লামা রুমী সোসাইটি বাংলাদেশের উদ্যোগে ৫ সেপ্টেম্বর সকালে লালখান বাজার রুহ আফজা কুটির প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা এবং দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোসাইটির কার্যকরী সভাপতি সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চিটাগাং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটির ভিসি অধ্যাপক ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি অধ্যাপক ড. শিরীন আকতার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সৈয়দ আহমদুল হকের ছেলে ও সোসাইটির উপদেষ্টা সৈয়দ মাহমুদুল হক। অনুষ্ঠানে অতিথি বক্তা ছিলেন সুফিবাদ বিষয়ক গবেষক ড. সেলিম জাহাঙ্গীর, চট্টগ্রাম কলেজের রসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আকবর হোসেন, ধর্মতত্ত্ববিদ অধ্যাপক স্বদেশ চক্রবর্ত্তী, অধ্যাপক ড. মাসুম চৌধুরী, আল্লামা রুমী সোসাইটির মহাসচিব সৈয়দ মোহাম্মদ সিরাজ উদ দৌলা, বাংলাদেশ ইসলামী মহিলা ফ্রন্ট চট্টগ্রাম মহানগর উত্তরের সভাপতি হাজ্জা কুসুম আকতার ভাণ্ডারী, আল্লামা রুমী সোসাইটির সহসভাপতি সৈয়দ সিরাজুল মোস্তফা, সৈয়দা খুজিসতা মাহমুদ প্রমুখ।
অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোহাম্মদ ইমরান খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তারা বলেন, বাংলার রুমী সৈয়দ আহমদুল হক ছিলেন একজন আলোকিত মরমি গবেষক, প্রজ্ঞাবান ব্যক্তিত্ব এবং অসাম্প্রদায়িক সমাজ নির্মাণের স্বপ্নদ্রষ্টা। তিনি সুফিবাদের অনুপম ও শান্তিপূর্ণ পন্থাকে বিকশিত করতে ১৯৯২ সালে আল্লামা রুমী সোসাইটি প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানেও এই সোসাইটি মানবপ্রেমকে ধারণ করে জ্ঞানভিত্তিক মানবিক সমাজ ও রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রেখে চলছে। আলোচনা সভা শেষে মুনাজাত পরিচালনা করেন সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। অনুষ্ঠান সূচিতে ছিল বাদ ফজর খতমে কুরআন ও মিলাদ মাহফিল, সামা মাহফিল, মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং তবারুক বিতরণ।

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.