নিউ ইয়র্কে মিয়ানমার দূতাবাসের সামনে প্রতিবাদ বিক্ষোভ

নিউ ইয়র্ক থেকে সংবাদদাতা

রাখাইন প্রদেশে অব্যাহত গণহত্যা বন্ধের প্রতিবাদে নিউ ইয়র্কস্থ মিয়ানমার কন্সুলেট ও জাতিসংঘের স্থায়ী মিশনের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে নিউ ইয়র্কের বেশ কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে পাঁচটা থেকে সাতটা পর্যন্ত চলে এ সমাবেশ।

বাংলা ব্রিগেড নিউ ইয়র্ক সিটির পরিচালক মানবাধিকার কর্মী শাহানা হানিফের সঞ্চলনায় এতে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন বার্মা টাস্কফোর্স নিউ ইয়র্কের পরিচালক আদম ক্যারল, ডেসিজ রাইজিং আপ অ্যান্ড মুভিংয়ের অর্গানাইজিং ডিরেক্টর কাজী ফৌজিয়া, সাউথ এশিয়ান সলিডারিটি ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ইমরান আনসারী, বাংলাদেশ সোসাইটির সেক্রেটারি রুহুল আমিন, মানবাধিকার কর্মী হোসনে আরা বেগম, গবেষক ও মানবাধিকার কর্মী আবদুর রহিম দিপু, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট আজাদ বাকীর প্রমূখ।

এসময় আদম ক্যারল বলেন, মিয়ানমারে চলমান সহিংসতার বিষয়ে বিশ্ব জনমতকে বিভ্রান্ত করছে সূ চির সরকার। বাড়ি ঘর পুড়ানোর প্রমাণ এখন স্যাটেলাইটের মাধ্যমে আমরা পাচ্ছি। এক মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টি হয়েছে বাংলাদেশ সীমান্তে।
এ জনগোষ্ঠীকে রক্ষায় যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে কার্যকর ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

কফি আনানের নেতৃত্বে গঠিত কমিটির সুপারিশ বাস্তবায়নের দাবি জানান তিনি।

কাজী ফৌজিয়া বলেন, মানবতার এতো বড় বিপর্যয় সহ্য করার মতো নয়। যার যা কিছু আছ তাই নিয়ে এ জনগোষ্ঠীকে রক্ষায় আমাদের এগিয়ে আসতে হবে।

ইমরান আনসারী বলেন, অং সান সূ চির মিথ্যাচার বিশ্বজনমতকে বিভ্রান্ত করছে। চলমান গণহত্যার জন্য অং সান সূ চিকে আন্তর্জাতিক আদালতের মুখোমুখি করতে হবে। তিনি অবিলম্বে রাখাইন প্রদেশে শান্তিরক্ষী মিশন পাঠানোর দাবি জানান।

বাংলাদেশ সোসাইটির সেক্রেটারি রুহুল আমিন সিদ্দিকী বলেন, বাংলাদেশের মানুষ তাদের সাধ্যানুযায়ী রোহিঙ্গাদের সহযোগিতার চেষ্টা করছে। কিন্তু সংকটের দীর্ঘাস্থায়ী সমাধানে আন্তর্জাতিক বিশ্বকে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে।

হোসনে আরা বেগম বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে আজকে সোস্যাল মিডিয়া বড় ধরণের ভূমিকা পালন করছে। যেসব ভিডিও আসছে তা দেখে কোনো মানুষ ঠিক থাকতে পারবে না। এ হামলা এখনই বন্ধ করতে হবে।

আবদুর রহিম দিপু বলেন, এ সহিংসতার ঘটনায় বিশ্ব বিবেক চুপ থাকতে পারে না। এ চুপ থাকা অনেক বড় ধরণের মানবিক বিপর্যয়কে উস্কানি দেবে।

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.