২ হাজার একর জায়গায় রোহিঙ্গাদের একসঙ্গে রাখা হবে: ত্রাণমন্ত্রী

সংসদ প্রতিবেদক

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, কক্সবাজারসহ বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা রোহিঙ্গাদের একসঙ্গে থাকার ব্যবস্থা করবো। উখিয়ায় দুই হাজার একর জায়গা চিহ্নিত করে সেই জায়গায় তাদেরকে অস্থায়ীভাবে রাখা হবে।

রোববার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারি দলের সংসদ সদস্য কামাল আহমেদ মজুমদারের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

ত্রাণমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের সাময়িকভাবে আশ্রয় দেয়া হয়েছে। তবে বিশ্ববাসীকে সঙ্গে নিয়ে কূটনৈতিক তৎপরতা বাড়িয়ে তাদেরকে দেশে ফেরত পাঠানো হবে। 

মিয়ানমার থেকে নির্যাতিত রোহিঙ্গারা যেভাবে দেশে প্রবেশ করছেন তাদের বর্ণনা দিয়ে মায়া বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা এ অবস্থায় চুপ থাকেননি। যেভাবে মিয়ানমারের লোক দেশে পালিয়ে আসছে আমরা যদি তাদের নিয়ন্ত্রণ করতাম তাহলে তাদের অবস্থা আরো খারাপ হতো। আমরা সেটা করতে পারি না।

মন্ত্রী বলেন, দেশে ফিরি যাওয়ার আগ পর্যন্ত তাদের খাওয়া, চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। মানবিক দিক থেকে আমরা এসব করব। এতে সরকারের কোনো প্রকার কৃপণতা নেই। এছাড়া আমরা হাতিয়ার ঠেঙ্গারচর যেটাকে প্রধানমন্ত্রী ভাষানচর নাম দিয়েছেন সেখানেও তাদের রাখব। তারা মিয়ানমারের নাগরিক। যতদিন পর্যন্ত তারা দেশে ফিরে যেতে না পারবেন ততদিন তারা সেখানে থাকতে পারবেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.