আহত সাবর্ণা
আহত সাবর্ণা

আগৈলঝাড়ায় সতীনের ছোঁড়া গরম ভাতের মারে ঝলসে গেছে ছোট সতীন

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) সংবাদদাতা

বড় সতীনের ছোঁড়া গমর ভাতের মারে ঝলসে গেছে ছোট সতীনের শরীরের বিভিন্ন অংশ। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার বাগধা ইউনিয়নের সোমাইরপাড় গ্রামে।

হাসপাতালে আহত সুবর্ণা (১৮) জানান, গত ৩০ বছর পূর্বে তার স্বামী সত্য রঞ্জন অধিকারী বড় সতীন কাজলী রানীকে বিয়ে করেন। দাম্পত্য জীবনে তাদের কোনো সন্তান না হওয়ায় বড় সতীন কাজলী রানীর সম্মতিতে গত এক বছর আগে দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে হত দরিদ্র সুবর্ণাকে বিয়ে করেন দিন মজুর সত্য রঞ্জন।

সুবর্ণার অভিযোগ, বিয়ের পর প্রথমে দুই সতীন কিছু দিন স্বাভাবিক জীবন যাপন করলেও কয়েক মাস যেতে না যেতে তাদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ শুরু হয়। গত রোববার ঘটনার দিন রাত দশটার দিকে বড় সতীন কাজলী রানী ছোট সতীন সুবর্ণাকে চুলা থেকে ভাত নামিয়ে মার ছাঁকতে বলেন। সুবর্ণা রান্নাঘরে ভাতের মার ছাঁকতে বসা অবস্থায় কাজলী রানী এক গামলা গড়ম ভাতের মার ছোট সতীনের গায়ে ছুড়ে মারে। এতে ছোট সতীনের শরীরের বিভিন্ন অংশ ঝলসে যায়।

বিষয়টি প্রথমে গোপন রাখে তার পরিবার। সুবর্ণার অবস্থার অবনতি হলে সোমবার সকালে তাকে উপজেলা দুঃস্থ মানবতার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালের চিকিৎসক আশ্রাফুল ইসলাম শাওন জানান, সুবর্ণার শরীরের বিভিন্ন অংশে অন্তত ২০ শতাংশ ঝলসে গেছে। চিকিৎসায় তার উন্নতি হচ্ছে।

স্বামী সত্য রঞ্জন অধিকারী বলেন, তাদের মধ্যে বিবাদ থাকলেও ঘটনার দিন কোনো ঝগড়া হয়নি। বড় স্ত্রীর তাকে জানিয়েছে, বিদ্যুৎ না থাকায় বাগানে গড়ম ভাতের মার ছোড়ার সময় ভুলে সুবর্ণার গায়ে গিয়ে পরেছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.