মনোহরদীতে ভুল চিকিৎসায় অন্তঃসত্ত্বা এক মায়ের অবস্থা আশঙ্কাজনক

মনোহরদী (নরসিংদী) সংবাদদাতা

নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক নার্সের ভুল চিকিৎসায় শাহনাজ পারভীন (৩৫) নামে ছয় মাসের এক অন্তঃসত্ত্ব¡া মায়ের অবস্থা আশঙ্কাজনক। শাহনাজ মনোহরদী উপজেলার শুকুন্দী ইউনিয়নের দিঘাকান্দী গ্রামের দিনমজুর আবুল কালামের স্ত্রী। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
শাহনাজের স্বামী আবুল কালাম অভিযোগ করেন, গত রোববার বিকেলে আমার স্ত্রীর পেটে ব্যথা শুরু হলে মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসি। সেখানে পূর্ব পরিচিত নার্স পারভিন বেগমের সাথে কথা বলার পর তিনি আমার স্ত্রীকে লেবার রুমে নিয়ে যান। কিছুক্ষণ পর বের হয়ে তিনি জানান, শাহনাজের গর্ভের সন্তানটি মৃত অবস্থায় রয়েছে। পরে নার্স পারভিন আক্তার জরুরি কাজে ঢাকায় চলে যান এবং মার্জিয়া আক্তার নামে আরেক নার্সকে বিষয়টি দেখার দায়িত্ব দেন। পরে নার্স মার্জিয়া বেগম কোনো ডাক্তারের সাথে পরামর্শ ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়াই পেটের ভিতর থেকে বাচ্চা বের করার চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে রোগী প্রচুর রক্তক্ষরণে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। রোগীর অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে নার্স মার্জিয়া বেগম রোগীর স্বামীকে ডেকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে তিনি দ্রুত হাসপাতাল ত্যাগ করেন। পরে রোগীর স্বজনেরা এসে অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে প্রথমে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে এক দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর রোগীর অবস্থা আরো গুরুতর হওয়ায় দায়িত্বরত চিকিৎসক ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। সোমবার সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানেও এক দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় মঙ্গলবার বিকেলে বাংলাদেশ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে মুমূর্ষু অবস্থায় রোগীকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.