অপহরণের ১৭ দিন পার

সঙ্ঘবদ্ধ গোষ্ঠী আমিনুরকে অপহরণ করেছে : কল্যাণ পার্টি

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমান অপহরণ হওয়ার পর ১৭ দিন পার হলেও তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। কল্যাণ পার্টির পক্ষ থেকে গতকাল জাতীয় প্রেস কাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা উল্লেখ করা হয়। এতে দলটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব:) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক লিখিত বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে কয়েক শ’ রাজনৈতিক ব্যক্তি, ব্যবসায়ী ও পেশাজীবী অপহরণের শিকার হয়েছেন। যাদের কয়েকজন ফিরে এলেও বেশির ভাগেরই কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। সে জন্য আমাদের বদ্ধমূল ধারণা রাজনৈতিক উদ্দেশে সঙ্ঘবদ্ধ কোনো কর্তৃপক্ষ বা সঙ্ঘবদ্ধ কোনো গোষ্ঠী আমিনুর রহমানকে অপহরণ করেছে; যার দায় সরকার কোনোভাবেই এড়াতে পারে না। তাকে উদ্ধার করে দেয়ার মাধ্যমেই সরকার তার স্বচ্ছতা প্রমাণ করতে পারে।
সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন : স্থায়ী কমিটির সদস্য মো: ইলিয়াস, ভাইস চেয়ারম্যান সাহিদুর রহমান তামান্না, সৈয়দ নজরুল ইসলাম ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব নুরুল কবির পিন্টু। গুম হওয়া আমিনুর রহমানের পরিবারের পক্ষে তার ভাই এম এম মিজানুর রহমান ও তার ভাবী কাজী আইনুন নাহার বিথী। ২০ দলীয় জোট ও সমমনা দলের নেতাদের মধ্যে ছিলেন বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা: মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ইঞ্জিনিয়ার ফরিদ উদ্দিন, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, মুসলিম লীগের মহাসচিব অ্যাডভোকেট শেখ জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী, বিজেপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আব্দুল মতিন, এনডিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মঞ্জুর হোসেন ঈসা, জাতীয় দলের সভাপতি অ্যাডভোকেট এহসানুল হুদা প্রমুখ।
সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বলেন, গত ২৭ আগস্ট রাতে গুম হন আমিনুর রহমান। এরপর তার পরিবার ও রাজনৈতিক সহকর্মীরা খোঁজ নিয়েও তার সন্ধান পাননি। এ কারণে তার পরিবার ৩০ আগস্ট পল্টন থানায় একটি জিডি করেন। কিন্তু গত ১৭ দিনেও তাকে পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, আমিনুর রহমান অবিবাহিত ছিলেন। কোনো ব্যবসায়ও জড়িত ছিলেন না। শুধু রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। এ জন্য আমরা মনে করি তাকে রাজনৈতিক কারণেই অপহরণ করা হয়েছে।
কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, দেশে গুম-খুন-অপহরণ বেড়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, সরকারকে মনে রাখতে হবে দমননীতির মাধ্যমে ক্ষমতাকে স্থায়ী করা যায় না। তিনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা-কর্মচারী তথা জনগণের সেবক হিসেবে আপনারা প্রভাবশালী বা ক্ষমতাসীনদের কথায় প্রভাবিত হবেন না।
সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর মিয়ানমার সরকারের হত্যা-নির্যাতনের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, পরিস্থিতি মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারের উচিত হিংসামূলক রাজনীতি বাদ দিয়ে সব রাজনৈতিক দলকে সাথে নিয়ে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলা। একই সাথে তিনি রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সাহায্যে এগিয়ে আসতে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার অঞ্চলের মানুষের প্রতি আহ্বান জানান।

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.