প্রকাশিত খবরের প্রতিবাদ করেছেন মেজর মনজুর কাদের

গত ৬ সেপ্টেম্বর শেষ পৃষ্ঠায় ‘প্রার্থিতায় আঞ্চলিকতা নয়, দলীয় বা জোটের গুরুত্ব বেশি’ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনের একাংশে ‘পরিবর্তিত রাজনৈতিক কারণে এ আসন থেকে হারিয়ে গেছেন বিএনপির সাবেক প্রতিমন্ত্রী মেজর (অব:) মনজুর কাদের’ শব্দগুলোর প্রতিবাদ জানিয়েছেন মেজর (অব:) মনজুর কাদের। এক প্রতিবাদলিপিতে তিনি বলেন, আমার রাজনৈতিক ভাবমর্যাদা ও মানসম্মান ুণœ করা হয়েছে এবং সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করা হয়েছে।
তিনি বলেন, ৫ সেপ্টেম্বর নয়া দিগন্তে ‘আ’লীগ-বিএনপির দৌড়ঝাঁপ বসে নেই জামায়াত’ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে ‘এ দিকে বিএনপি থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী হিসেবে সাবেক এমপি মেজর (অব:) মনজুর কাদের নীরবে কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে যাচ্ছেন। তিনি এ আসন থেকে ২০০৮ সালে মাত্র চারদিন আগে মনোনয়ন নিয়ে এসে প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল লতিফ বিশ্বাসের কাছে ২৫২ ভোটে হেরে যান’ এবং শেষ অনুচ্ছেদে লেখা হয়েছে ‘২০০৮ সালে সিরাজগঞ্জ-৫ (বেলকুচি-চৌহালী) আসনে আবদুল লতিফ বিশ্বাস এক লাখ ১৯ হাজার ৫৮২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী চারদলীয় জোটের মেজর (অব:) মনজুর কাদের এক লাখ ১৯ হাজার ৩৩০ ভোট পান’। ওই নির্বাচনে ১৬৮৯টি ভোট বাতিল দেখিয়ে বাংলাদেশে সবচেয়ে কম ভোটের (অর্থাৎ ২৫২ ভোট) ব্যবধানে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।
প্রতিবাদলিপিতে তিনি বলেন, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) ২০১০ সালে আমাকে সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক নিযুক্ত করে এবং সফলভাবে যথাসময়ে সিরাজগঞ্জ জেলা কমিটি গঠন করায় আমি ব্যাপক অবদান রাখি। বর্তমানে আমি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) কেন্দ্রীয় ওয়ার্কিং কমিটির সদস্য।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.