রোহিঙ্গা গণহত্যা বন্ধের দাবিতে রাজধানীতে জামায়াতের বিক্ষোভ মিছিল : নয়া দিগন্ত
রোহিঙ্গা গণহত্যা বন্ধের দাবিতে রাজধানীতে জামায়াতের বিক্ষোভ মিছিল : নয়া দিগন্ত

রোহিঙ্গা সমস্যায় বিশ্ব সংস্থাকে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জামায়াতের

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তর আমির মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন বলেছেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গণহত্যা হালাকু খানের বাগদাদ ধ্বংসের নির্মমতাকেও হার মানিয়েছে। তারা আরাকানের মুসলমানদের সে দেশ থেকে বিতাড়িত করতেই গণহত্যা, ধর্ষণ, নির্যাতন, বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ করে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। শান্তিতে নোবেল বিজয়ী অং সান সু চিও রোহিঙ্গা নিধনে প্রত্যক্ষ ভূমিকা পালন করছেন। তাই শুধু নিন্দা নয় বরং মিয়ানমার সরকারকে গণহত্যা ও নিপীড়ন বন্ধে বাধ্য করতে বিশ^বাসীকে ঐক্যবদ্ধ ও কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে। তিনি অবিলম্বে গণহত্যা ও নিপীড়ন বন্ধ এবং রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব ফিরিয়ে দিয়ে নিরাপদে স্বদেশে ফিরিয়ে নেয়ার আহ্বান জানান।
রাজধানীতে কেন্দ্র ঘোষিত শান্তিপূর্ণ বিােভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে তিনি গতকাল বুধবার রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর মিয়ানমার সরকারের গণহত্যা, ধর্ষণ, নির্যাতন, বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ বন্ধ এবং তাদের নাগরিকত্ব বহাল করে নিরাপদে স্বদেশে ফিরিয়ে নেয়ার দাবিতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগর উত্তর আয়োজিত এক বিােভ-পরবর্তী সমাবেশে এসব কথা বলেন। বিােভ মিছিলটি মিরপুর ১ নম্বর থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদণি করে টেকনিক্যাল মোড়ে গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তর সেক্রেটারি ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম, কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তরের সহকারী সেক্রেটরি মাহফুজুর রহমান, কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন, ঢাকা মহানগর উত্তরের কর্মপরিষদ সদস্য নাজিম উদ্দীন মোল্লা ও ইবনে কারীম আহমদ মিঠু, মহানগর মজলিসে শূরা সদস্য ড. আহসান হাবীব, বেলায়েত হোসেন সুজা, শেখ নেয়ামুল করিম, অ্যাডভোকেট ইব্রাহীম খলিল ও হোসাইন আহমদ, জামায়াত নেতা শাহ আলম তুহিন, ছাত্রনেতা জামিল হোসেন, ডা: মুজাহিদুল ইসলাম ও মেহেদী হাসান প্রমুখ।
সেলিম উদ্দিন বলেন, মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও বৌদ্ধ উগ্রবাদীরা রোহিঙ্গা মুসলমানদের পুড়িয়ে গলা কেটে ও গুলি করে নির্মম ও নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করছে। তারা মুসলমানদের বাড়িঘর, মসজিদ, মাদরাসা ও ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে অগ্নিসংযোগ করে নির্বিচারে লুটতরাজ চালাচ্ছে। বৌদ্ধ উগ্রবাদীদের জিঘাংসা থেকে রেহাই পাচ্ছে না নারী, শিশু এবং বৃদ্ধরাও। জাতিসঙ্ঘের রিপোর্ট অনুযায়ী সাম্প্রতিক সহিংসতায় তিন সহস্রাধিক রোহিঙ্গা প্রাণ হারিয়েছেন। নারীরা গণহারে ধর্ষণের শিকার হচ্ছেন। প্রায় তিন লাধিক রোহিঙ্গা মুসলমান বাংলাদেশে পালিয়ে আসতে বাধ্য হয়েছেন। তিনি রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে অবিলম্বে জাতিসঙ্ঘ, সার্ক, ওআইসি ও আরবলিগসহ বিশ^ সংস্থাগুলোকে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ এবং রাখাইন রাজ্যে জাতিসঙ্ঘের অধীনে শান্তিরক্ষী বাহিনী মোতায়েনের আহ্বান জানান। বিজ্ঞপ্তি।

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.