কেবল তো ৫৬ ডেভের

মীর মুজাহিদ আহসান

মেটাল মিউজিক ফ্যান বা থ্র্যাশ মেটাল ভক্ত। অথচ মেগা ডেথ ও ডেভ মাস্টেইনকে জানে না এমন ব্যক্তি নেই। আর চিনবেই না বা কেন? মিউজিকের এই ভার্সনের কথা যখন ওঠে, ডেভ মাস্টেইনের কথাই যে আসে সবার আগে।
১৯৬১ সালের সেপ্টেম্বরের ১৩ তারিখে জন্ম হয় মেটাল মিউজিকের এই বিখ্যাত ফ্রন্টম্যান, হাজারো মেটাল হেডের ইন্সপেরেশন, থ্র্যাশ মেটালের আরেক নাম 'David Scott Mustaine'। ক্যালিফোর্নিয়ার লা-মেসায় জন্ম হয় এই তারকার।
মিউজিক ক্যারিয়ার শুরু করেন 'পেনিক' নামক এক ব্যান্ডে, কিন্তু সময় ছিল খুবই কম। দ্বিতীয় শো-এর পরই মটর দুর্ঘটনায় ব্যান্ডের ড্রামার ও সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার মারা যান।
আসল ইতিহাসের শুরু ১৯৮১ সালে। 'দ্যা সাইকেলার' নামক পত্রিকায় একটি বিজ্ঞাপনে একজন গিটারিস্টের সন্ধান করা হয় পৃথিবীর সব চাইতে জনপ্রিয় ব্যান্ড 'মেটালিকার' জন্য। ডেভ অডিশন দিতে গিয়েছিলেন। লারস (ড্রামার) ও হেটফিল্ড (ফ্রন্টম্যান) তাকে জানালেন এই ব্যান্ডের মেম্বার হিসেবে বিবেচিত হয়েছেন ডেভ।
শুরু হয়ে যায় ইতিহাস, ধীরে ধীরে মেটালপ্রেমিদের মন জয় করে নিতে থাকে এই ব্যান্ড। 'কিল এম কিল', 'রাইড দ্যা লাইটিং' এবং 'মাস্টার অফ পাপেটস'-এর মতো অ্যালবামের কাজ শুরু হয়। মেটালিকা তখন ব্যান্ড মিউজিকের শীর্ষে।
১৯৮৩ সাল থেকে সব কিছু অন্যদিকে মোড় নিতে থাকে।
কোনো এক বিশেষ কারণে ডেভ তার পোষা কুকুরকে নিয়ে রিহার্সেলে যান। মেটালিকার গাড়ি দেখার পর ডেভের কুকুর গাড়ির কাছে ছুটে যায় ও একটি আচড় দিয়ে বসে। কোনো দিক বিবেচনা না করে হেটফিল্ড কুকুরটিকে লাথি দিয়ে দূরে সরিয়ে দেন। ডেভ সাথে সাথে প্রতিবাদ জানান, মারতে যান হেটফিল্ডকে। সাথে সাথে ব্যান্ড থেকে বহিস্কার করা হয় ডেভকে। কিন্তু পরে ডেভ নিজের ভুল বুঝে আবার ফিরতে চান, তার অনুরোধ গ্রহণ করা হয়।
১১ এপ্রিল ১৯৮৩ সালে মেটালিকা তাদের ডেব্যু অ্যালবাম রেকর্ডের জন্য নিউ ইয়র্কে যায়। ঠিক সেই সময় আবার ব্যান্ড থেকে বহিষ্কার করা হয় ডেভকে। কারণ ছিল তার উগ্র আচরণ আর ব্যান্ডের সাথে মনোমালিন্য।
এরপর 'ফেলন এঞ্জেলস' নামের একটি ব্যান্ড ছাড়াও বেশ কিছু ব্যান্ডে ব্যর্থ প্রচেষ্টা চালান ডেভ মাস্টেইন।
এরপর ১৯৮৪ জন্ম নেয় মেগাডেথ। এইবার গিটারিস্ট থেকে নিজেই ফ্রন্টম্যান হিসেবে পারফর্ম শুরু করেন। ১৯৮৫ সালে প্রথম অ্যালবাম রিলিজ পায় 'কিলিং ইজ মাই বিজনেস... এন্ড বিজনেস ইজ গুড'। এই থেকেই শুরু। 'জ্যাকসন গিটার্স' থেকে প্রথম নিজের কাস্টুম গিটার পান ডেভ মাস্টেইন। এখন তার সিগনেচার গিটার সবগুলো 'ডিন গিটার্সের'। এই ব্যান্ডে গটারিস্ট হিসেবে কাজ করেছেন 'মারটি ফ্রিড' ও 'কির্স বোড্রক'-এর মতো গিটারিস্টরা।
মেগাডেথ এ পর্যন্ত মোট ১৫টি অ্যালবাম রিলিজ করেছে। সর্বশেষ অ্যালবামটির নাম 'ডিসোপিয়া (২০১৬)'।
'টর্নেডো অফ সোলস', 'সিমফোনি অফ ডিস্ট্রাকশন”, 'হ্যাংজ্ঞার ১৮', 'হলি ওয়ার পানিশমেন্ট ডিউ” ইত্যাদি গান মেটাল ফ্যানদের মধ্যে ভীষণ সাড়া জাগায়।
শত শত বছর ঠিক এভাবেই পারফর্ম করুক মেগাডেথ। শতায়ু হন ডেভ মাস্টেইন, এটাই ভক্তদের প্রত্যাশা।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.